মঙ্গলবার, ২৪ ডিসেম্বর, ২০১৯

ফের মোদির মিথ্যের পর্দাফাঁস, কর্নাটকেই গড়ে উঠেছে ডিটেনশন ক্যাম্প

পুবের কলম, ওয়েব ডেস্ক:  রামলীলা ময়দানে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, দেশে কোথাও ডিটেনশন ক্যাম্প নেই। অথচ সংবাদমাধ্যমের দাবি, বিজেপি শাসিত কর্ণাটকেই অবৈধ অভিবাসীদের জন্য গড়ে উঠেছে প্রথম ডিটেনশন ক্যাম্প। বেঙ্গালুরু থেকে মাত্র ৪০কিমি দূরে নেলামানগালায় তৈরি হয়েছে এই ক্যাম্প।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ দাবি করছেন, সব রাজ্যে এনআরসি-সিএএ হবেই। অথচ সম্প্রতি মোদি বলছেন অন্যকথা। যদিও এবছর লোকসভা ভোটের মরসুমে সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে প্রধানমন্ত্রী নিজেই বলেছিলেন, ‘দেশের সব নাগরিকদের জন্য এনআরসি হবেই’। ফের প্রধানমন্ত্রীর মিথ্যের পর্দাফাঁস করেছে সেই সংবাদমাধ্যমই। সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার ডিপার্টমেন্টের কমিশনার আরএস পেড্ডাপ্পাইয়া সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘আমরা একটি সেন্টার করেছি। সেখানে অবৈধ অভিবাসীরা থাকবেন’।

তিনি আরও জানান, রাজ্য সরকার চাইছে জানুয়ারিতে সেন্টারটি খুলতে। কেন্দ্রীয় সরকারের কথা মতো এই কাজ অগ্রসর হয়। যেহেতু কেন্দ্রটি কয়েকদিনের জন্য খোলা হয়, তাই সেখানে কোনও অবৈধ অভিবাসী নেই।

কী আছে ওই ক্যাম্পে? ২৪জনের জন্য তৈরি ওই ক্যাম্পে রয়েছে ৬টি ঘর, একটি রান্নাঘর ও  সিকিউরিটি রুম। ডিটেনশন ক্যাম্পে ঢোকার মুখেই রয়েছে পুলিশি পাহারা। এর পাশাপাশি রয়েছে ২টি ওয়াচ টাওয়ার, ক্যাম্পের চারপাশে দেওয়া পাঁচিলে লাগানো হয়েছে বৈদ্যুতিন তার। অনেকটা ইংরেজি অক্ষর ‘এল’ আকৃতির আকার নিয়েছে ক্যাম্পটি। উল্লেখ্য, ২০১৮ এর আগস্টে ১৫জন অবৈধ বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারী গ্রেফতার হয় রাজ্যে। ২০১৯ এর জানুয়ারিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের নির্দেশের পর কর্নাটক সরকার ডিটেনশন ক্যাম্প তৈরির তোরজোড় শুরু করে। নভেম্বরে কর্নাটক হাইকোর্টকে রাজ্য জানায়, রাজ্যের সব জেলায় ৩৫টি অস্থায়ী ডিটেনশন ক্যাম্প খোলা হয়েছে। চলতি মাসের ৯ তারিখ রাজ্য জানায়, ২০২০ সাল থেকে ক্যাম্পটি পুরোদস্তুর খুলে যাবে।  

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only