শনিবার, ২৮ ডিসেম্বর, ২০১৯

অবশেষে কুয়োমিস্ত্রির সাহায্যে উদ্ধার বাঁশদ্রোণীর যুবকের নিথর দেহ



চিন্ময় ভট্টাচার্য 

পড়ে যাওয়ার ১৮ ঘণ্টা পরে, অবশেষে কুয়ো থেকে উদ্ধার হল বাঁশদ্রোণীর যুবকের নিথর দেহ। শনিবার সকালে বেশ কয়েক ঘণ্টা চেষ্টার পর, কুয়োমিস্ত্রিরা বাপি সরকার নামে ওই যুবকের নিথর দেহ উদ্ধার করেন। শুক্রবার দিনভর চেষ্টার পরও ওই যুবকের দেহ ঊদ্ধার করতে ব্যর্থ হন দমকলকর্মীরা। শুক্রবার দুপুরে স্নান করতে গিয়ে উধাও হয়ে গিয়েছিলেন বাঁশদ্রোণীর সোনালি পার্কের বাসিন্দা ওই যুবক। পরে বোঝা যায়, তিনি কুয়োয় পড়ে গিয়েছেন। 

শুক্রবার সন্ধে সাড়ে ৫টায় ওই যুবককে উদ্ধার করতে ডুবুরিরা কুয়োয় নামেন। দমকলের তিনটি ইঞ্জিন কাজ শুরু করে। দমকলকর্মীরা পাম্প চালিয়ে কুয়ো থেকে জল বের করে আনেন। নামানো হয় ডুবুরিও। প্রায় পঞ্চাশ ফুট গভীর পাতকুয়ো থেকে ওই যুবককে উদ্ধার করতে নামানো হয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী। সন্ধে সাতটা নাগাদ কুয়োর মধ্যে ওই যুবকের সন্ধান মেলে। শুরু হয় ডুবুরি নামিয়ে দেহ উদ্ধারের চেষ্টা। কিন্তু, সেখানেও দেখা দেয় সমস্যা। কুয়ো থেকে উদ্ধারের সময় দেহ থেকে দড়ি খুলে গিয়ে কুয়োয় পড়ে যান ওই যুবক। 


শুক্রবার রাত ১০টা পর্যন্ত দেহ উদ্ধারের চেষ্টা চালানোর পর, দমকলকর্মীরা জানিয়ে দেন, শনিবার সকাল থেকে ফের দেহ উদ্ধারের চেষ্টা শুরু হবে। যদিও দমকলের ওই সিদ্ধান্ত মানতে রাজি হয়নি বাপি সরকারের পরিবার। কিন্তু, তাতেও সিদ্ধান্ত বদল করেননি দমকলকর্মীরা।শনিবার সকালে দেহ উদ্ধারের পর ওই যুবকের পরিবার অভিযোগ করে, 'শুক্রবার রাতেই কুয়ো মিস্ত্রিদের আনা হয়েছিল। কিন্তু, তাঁদের কাজে লাগানো হয়নি। অথচ, আজ মাত্র দু'ঘণ্টার মধ্যেই দেহ উদ্ধার করে ফেলেন কুয়োমিস্ত্রিরা।' দমকলকর্মীদের ভূমিকা নিয়ে মৃত যুবকের পরিবারের লোকজন রীতিমতো ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only