শনিবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৯

অযোধ্যায় মুসলিমদের ৫ একর জমি কেন, রায় চ্যালেঞ্জ করে শীর্ষকোর্টে যাচ্ছে হিন্দু মহাসভা

সুপ্রিম কোর্টের রায়ে বাবরি থেকে অধিকার হারায় মুসলিমপক্ষ। এর বদলে অযোধ্যার গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় মুসলিমদের ৫ একর জমি দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। হিন্দু মহাসভার আপত্তি মূলত সেখানেই। সুপ্রিম কোর্টের রায়কে চ্যালেঞ্জ করে আগামী সপ্তাহে মামলা দায়ের করতে চলেছে হিন্দু মহাসভার একটি গোষ্ঠী। এমনিতে হিন্দু মহাসভার মধ্যে গোষ্ঠীগত মতপার্থক্য রয়েছে। একটি গোষ্ঠীর নেতৃত্বে রয়েছেন স্বামী চক্রপানি, অন্যটির নেতৃত্বে রয়েছেন শিশির চতুর্বেদি। এই চতুর্বেদি গোষ্ঠীই শীর্ষকোর্টে দায়ের করতে চলেছে মামলা। তাদের হয়ে এই আইনি লড়াই লড়বেন আইনজীবী শংকর জৈন। মূলত দু’টি কারণেই হিন্দু মহাসভা এই রায় মানতে আপত্তি জানাচ্ছে। প্রথমত তাদের দাবি, এটি প্রাথমিকভাবে টাইটেল মামলা। সেক্ষেত্রে আদালত যখন বলছে বিতর্কিত জমির বাইরের এবং ভিতরের সবটাই হিন্দুদের, তখন মুসলিমদের বিকল্প ৫ একর জায়গা কোনও যুক্তিতে দেওয়া হয়েছে? এর তো কোনও প্রয়োজনই ছিল না। দ্বিতীয়ত, হিন্দু মহাসভার প্রশ্ন হল, বাবরির ‘মসজিদ কা ধাঁচা’ ধ্বংস করে দেওয়া হয়েছিল। ৯ নভেম্বর সুপ্রিম কোর্ট যে রায় দিয়েছে, তাতে গোটা মসজিদ ধ্বংসের কথা বলা হয়েছে। সামগ্রিকভাবে মসজিদ ধ্বংস এবং মসজিদের ধাঁচা ধ্বংসের মধ্যে ফারাক রয়েছে। বিচার চলাকালীন এটাকে মসজিদের ধাঁচা ধ্বংস বলা হয়েছিল। কিন্তু রায়ে সামগ্রিকভাবে মসজিদ ধ্বংসের কথা বলা হয়েছে। ফলে স্বাভাবিকভাবে বিচারে আরও চাপ বেড়েছে।

 হিন্দু মহাসভার আইনজীবী  শংকর জৈন সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, ‘আদালত মসজিদ ধ্বংসকে আইনের শাসনের লঙ্ঘন বলে ধরে নিয়েছে। লখনউতে যে মামলা চলছে, এই রায় তার ওপরও প্রভাব ফেলবে। সে কারণেও আমরা এই মামলার পুনর্বিবেচনা চাইছি।’

সুপ্রিম কোর্ট আযোধ্যা রায় ঘোষণার পর তাকে স্বাগত জানিয়েছিল হিন্দু মহাসভা। এই রায়কে ‘ঐতিহাসিক’ বলে দাবি করেছিল তারা। উল্লেখ্য, আগেই জমিয়ত সুপ্রিম কোর্টের রায় রিভিউ করার আবেদন করেছে। তাদের সমর্থন করেছে অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল’ বোর্ড এবং পিস পার্টি অফ ইন্ডিয়া।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only