বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর, ২০১৯

রোহিঙ্গাদের ওপর গণধর্ষণ নিয়ে কী প্রশ্ন করল গাম্বিয়া?


পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক: বৃহস্পতিবার ছিল রাখাইনে মানবাধিকার লঙ্ঘন মামলার শেষ শোনানির দিন। এই পুরো মামলায় ওঠা গাম্বিয়ার সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন মায়ানমারের নেত্রী আং সান সু কি। তাঁর দাবি, রাখাইনে সন্ত্রাসবিরোধী গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে ছিল তারা। সেখানে জাতিগত নিধনের জন্য গণহত্যা চালানো হয়নি।তাঁর এই বক্তব্যে প্রেক্ষিতেই বৃহস্পতিবার প্রশ্নবাণে বিঁধল গাম্বিয়া।

শুনানির তৃতীয় দিনে মায়ানমারের কাছে গাম্বিয়ার প্রশ্ন, রাখাইনে রোহিঙ্গা মহিলাদের ওপর যে বার্মিস সেনারা সংঘবদ্ধ ভাবে ধর্ষণ চালিয়ে ছিল সেটা কি সন্ত্রাস দমনের পথ?
গাম্বিয়ার এমন প্রশ্নে কোনও উত্তর দিতে পারেনি মায়ানমার নেত্রী। উল্লেখ্য ২০১৭ সালে আগস্টে রাখাইনে রোহিঙ্গাদের ওপর পূর্বপরিকল্পিত ভাবে অত্যাচারের মাত্রা তীব্র করে মায়ানমার সেনা।

গণধর্ষণ, হত্যাযজ্ঞ,  বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করে মায়ানমার সেনা। নৃশংস,বর্বর, পৈশাচিক অত্যাচার থেকে প্রাণ বাঁছাতে প্রতিবেশি দেশ বাংলাদেশে আশ্রয় নিতে শুরু করে রোহিঙ্গারা। প্রায় সাত লক্ষ রোহিঙ্গা সেই সময় পালিয়ে এসছিল। এমন পাশবিক নির্যাতণকে ' মানবাধিকার বিরোধী' বলে উল্লেখ করে ২০১৯ সালে রাষ্ট্রসংঘের আদালত ইন্টারন্যাশনাল কোর্ট অব জাস্টিসে (আইসিজে)-তে মামলা করে গাম্বিয়া।
মামলার দ্বিতীয় দিনে গাম্বিয়াকে মিথ্যাবাদী বলে প্রতিপন্ন করার চেষ্টা করেন মায়ানমার নেত্রী সু কি। তিনি বলেন গাম্বিয়া যে তথ্যের ওপর ভিত্তি করে মামলা দায়ের করেছে, তা বিভ্রান্তিকর। 


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only