বুধবার, ১৮ ডিসেম্বর, ২০১৯

বনগাঁয় আগুনে পুড়ে এক গৃহবধূ ও যুবকের মৃত্যুতে চাঞ্চল্য, পুলিশি তদন্ত শুরু


এম এ হাকিম, বনগাঁ :  উত্তর ২৪ পরগণার বনগাঁর মনিগ্রামে আগুনে পুড়ে এক গৃহবধূ ও এক যুবকের অস্বাভাবিক মৃত্যুতে চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। এটি মৃত্যু, না হত্যার ঘটনা তা নিয়ে পুলিশি তদন্ত শুরু হয়েছে। বুধবার ভোরে একটি পাটকাটি গাদায় আগুন ধরে গেলে মনিগ্রাম শিবপুর বটতলা এলাকার স্থানীয় মানুষজন ছুটে যান। সেখানে পৌঁছে তাঁরা একই গ্রামের তপতী  মণ্ডল (৪৩) নামে এক গৃহবধূ ও প্রসেনজিৎ বৈদ্য (২৫) নামে এক যুবকের অগ্নিদগ্ধ দেহ দেখতে পান। পুলিশ ও ফায়ার ব্রিগেডে খবর গেলে ঘটনাস্থলে ফায়ার  ব্রিগেড পৌঁছে আগুন নেভানোর চেষ্টা করে। পুলিশের উচ্চপদস্থ আধিকারিকরাও ঘটনাস্থলে ছুটে যান। এসময় এলাকার বহু মানুষ সেখানে ভিড় জমান।   
             
বুধবার সন্ধ্যায় বনগাঁর এসডিপিও অশেষ বিক্রম দোস্তিদার ‘পুবের কলম’ প্রতিবেদককে জানান, পুলিশ কুকুর দিয়ে তদন্ত শুরু হয়েছে। ফরেনসিক টিম দিয়েও তদন্ত চালানো হবে। দেহ উদ্ধার করে ফরেনসিক তদন্তের জন্য কোলকাতায় পাঠানো হয়েছে। এখনই এনিয়ে কোনও সিদ্ধান্তে আসা যাচ্ছে না। যাবতীয় তদন্ত শেষেই মৃত্যুর আসল কারণ জানা যাবে বলেও এসডিপিও অশেষ বিক্রম দোস্তিদার বলেন।   

অন্যদিকে, স্থানীয় বাসিন্দাদের একাংশের দাবি, মৃত যুবকের সঙ্গে ওই মহিলার বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ক ছিল। যদিও সংশ্লিষ্ট পরিবারের পক্ষ থেকে তা অস্বীকার করা হয়েছে। মৃত প্রসেনজিৎ বৈদ্যের দাদা রণজিৎ বৈদ্যের দাবি, প্রতিবেশি হওয়ার সুবাদে মাস দু’য়েক হল ওনার সঙ্গে একটু সম্পর্ক হয়েছিল মাত্র। ওই বাড়িতে যাতায়াত করলে তিনি নিষেধও করেছিলেন। তবে কেন এভাবে মৃত্যু হল তিনিও ভেবে পাচ্ছেন না।

সংশ্লিষ্ট এলাকার বাসিন্দা ও বনগাঁ পঞ্চায়েত সমিতির সদস্য সাত্তার মণ্ডল জানান, একই গ্রামের প্রতিবেশি দু’জনের অস্বাভাবিক মৃত্যুতে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। পুলিশ সমস্ত দিক খতিয়ে দেখে খুব শীঘ্রই মর্মান্তিক ওই ঘটনার প্রকৃত রহস্য উন্মোচন করতে সমর্থ হবে বলে আশা করছি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only