বৃহস্পতিবার, ২৬ ডিসেম্বর, ২০১৯

এনপিআর ইস্যুতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বিরুদ্ধে দেশকে বিভ্রান্ত করার অভিযোগ ওয়াইসির


পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক :  জাতীয় জনসংখ্যা নিবন্ধন বা ‘এনপিআর’ কার্যকর হওয়ার ঘোষণা প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহের বিরুদ্ধে দেশকে বিভ্রান্ত করার অভিযোগ করলেন ‘মজলিশ-ই-ইত্তেহাদুল-মুসলেমিন’ প্রধান ব্যারিস্টার আসাদউদ্দিন ওয়াইসি এমপি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের দাবি, ‘এনপিআরের সঙ্গে এনআরসি’র কোনও সম্পর্ক নেই।এনপিআরে কারও নাম বাদ গেলেও তাঁর নাগরিকত্ব যাবে না।’

অমিত শাহের ওই মন্তব্য প্রসঙ্গে ব্যারিস্টার আসাদউদ্দিন ওয়াইসি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর বিরুদ্ধে দেশকে বিভ্রান্ত করার অভিযোগ করেছেন। আজ বুধবার ওয়াইসি গণমাধ্যমে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘আপনি যে এনপিআর করছেন তা ১৯৫৫ সালের নাগরিকত্ব আইন অনুযায়ী করছেন। তাহলে কী এনআরসির সঙ্গে এর কোনও সম্পর্ক নেই?  কেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী গোটা দেশকে বিভ্রান্ত করছেন? ওনাকে মনে করিয়ে দিতে চাই সংসদে আমার নাম উল্লেখ করে বলেছিলেন, ওয়াইসজী গোটা দেশে এনআরসি হবে। আপনি আপনার ভুল স্বীকার করবেন? আপনি দেশকে বিভ্রান্ত করছেন। এটা শোভনীয় নয়। কারণ আপনি এদেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী। আপনাকে সত্যি কথা বলা উচিত।’

ওয়াইসি বলেন, ‘এব্যাপারে আপনাদেরই বার্ষিক রিপোর্ট, আপনাদেরই ওয়েবসাইট, সংসদে আপনাদেরই মন্ত্রীর উত্তর রয়েছে। কিন্তু কেন দেশকে বিভ্রান্ত করছেন?’ এনপিআরকে এনআরসির প্রথম ধাপ বলেও ওয়াইসি সাফ জানান।

এরআগে এনপিআর প্রসঙ্গে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ওয়াইসি বলেন, ‘প্রথমে স্থানীয় এক কর্মকর্তা তালিকাটি নিশ্চিত করেন এবং স্থানীয় নাগরিকদের তালিকা থেকে সন্দেহজনক নাগরিকদের নোটিস দেন। এই 'সন্দেহভাজন' নাগরিকদের নিজেদের নাগরিকত্বের প্রমাণ দিতে হবে। এরপরেই, খসড়া তালিকা প্রকাশিত হয়। আপনি যদি মনে করেন খসড়া তালিকায় আপনার নাম থাকলেই যথেষ্ট, তবে তা সঠিক নয়। কারণ নিয়ম অনুযায়ী তালিকায় নাম অন্তর্ভুক্তির বিষয়ে কেউ চাইলেই তাঁর আপত্তি জানাতে পারেন। যে কেউ ওই আপত্তি জানাতে পারেন। শেষপর্যন্ত আপনার ভারতীয় নাগরিকত্বের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার ভার পুরোপুরি একজন  সরকারি কর্মকর্তার হাতে থাকবে।’

এদিকে, মহারাষ্ট্রের এনসিপি নেতা নবাব মালিক আজ বলেছেন, অমিত শাহের জেদের কারণে জাতীয় জনসংখ্যা নিবন্ধন ‘এনপিআর’ শুরু হচ্ছে। তাঁর অভিযোগ, এক সংস্থাকে ঠিকা দিয়ে আট হাজার কোটি টাকা নষ্ট করার জন্য একটি কর্মসূচি চালু করা হচ্ছে। প্রায় ৯৫ শতাংশ মানুষের ‘আধার কার্ড’ রয়েছে। আধার থেকেই আদমশুমারি করা উচিত। যাদের আধার কার্ড নেই, তাদের আধার কার্ড তৈরি করা উচিত বলেও নবাব মালিক মন্তব্য করেন।
জাতীয় নাগরিকপঞ্জি (এনআরসি) ও সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) ইস্যুতে দেশজুড়ে তীব্র বিতর্কের মধ্যে গতকাল (মঙ্গলবার) এনপিআর পরিমার্জন খাতে ৩ হাজার ৯৪১ কোটি বরাদ্দ অনুমোদন করেছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা। একইসঙ্গে ২০২১ সালের আদমশুমারির জন্য বরাদ্দ হয়েছে ৮ হাজার ৭৫৪ কোটি টাকা।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only