বুধবার, ২৫ ডিসেম্বর, ২০১৯

‘মুসলিমদের জন্য ১৫০টি দেশ রয়েছে, তারা যে কোনও জায়গায় যেতেই পারে’

পুবের কমল, ওয়েব ডেস্ক: সিএএ এবং এনআরসি নিয়ে উত্তেজনা দেশের একাধিক রাজ্যে। এই পরিস্থিতিতে আগুনে ঘৃতাহুতি দিলেন গুজরাতের মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রূপানি। তাঁর মতে, ‘মুসলিমদের জন্য ১৫০টি দেশ রয়েছে। তারা সেখানে যেতেই পারে। কিন্তু হিন্দুদের একটাই দেশ, ভারত’।

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের সমর্থনে গুজরাতে বেশ কয়েকটির্ যালির আয়োজন করা হয়। সবরমতী আশ্রমের বাইরে একটি অনুষ্ঠানে রূপানি বলেন, এক সময় আফগানিস্তানে হিন্দু আর শিখের সংখ্যা ছিল ২ লক্ষ। বর্তমানে তা ৫০০-তে নেমে এসেছে। মুসলিমরা ১৫০টি দেশের যে কোনও জায়গায় যেতে পারেন। কিন্তু হিন্দুদের শুধু একটাই দেশ আছে, ভারত। তাহলে কী সমস্যা রয়েছে যদি হিন্দুরা এদেশে আসতে চান?’

রূপানি দাবি করেন, ভারতে মুসলিমরা সম্মানের সঙ্গে বসবাস করার সুযোগ পান। জনসংখ্যাও তাদের বেড়েছে। ৯ থেকে মুসলমানদের জনসংখ্যা ভারতে ১৪ শতাংশে পৌঁছেছে। ধর্মনিরপেক্ষ সংবিধানের জন্য মুসলিমরা এদেশে সম্মানের সঙ্গে বাস করছে।’ এখানেই না থেমে রূপানি দাবি করেন– দেশভাগের সময় পাকিস্তানে ২২ শতাংশ হিন্দু ছিল। ধর্ষণ– অত্যাচারের ফলে সেই সংখ্যা কমে হয়েছে ৩ শতাংশ। সেইজন্যই হিন্দুরা ভারতে চলে আসছে। আমরা যখন এটা করছি– তখন আপনারা বিরোধিতা করছেন’।

রূপানির এই মন্তব্যের পর শুরু হয়েছে জোর সমালোচনা। কারণ একদিকে যখন এনআরসি প্রসঙ্গে ডিগবাজি খাচ্ছেন দলের ২ হেভিওয়েট মোদি ও শাহ, তখন গুজরাতের মুখ্যমন্ত্রীর এই মন্তব্যের অর্থ কী? অনেকে আবার মনে করছেন, দেশের উত্তপ্ত পরিস্থিতিতে হিন্দু-মুসলমানের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টির চেষ্টা করছেন গুজরাতের মুখ্যমন্ত্রী।


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only