বৃহস্পতিবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৯

ভর্তুকি উঠিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত সংসদ ভবনের ক্যান্টিন থেকে




পুবের কলম, ওয়েব ডেস্ক: সাংসদ ভবনের ক্যান্টিনের খাবারের উপর থেকে ভর্তুকি তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিলেন কর্তূপক্ষ। এখন থেকে সাংসদরা ভর্তুকিতে খাবার খেতে পারবেন না। প্রতি বছর ভর্তুকির ফলে সরকারের পকেট থেকে খরচ হতো ১৭ কোটি টাকা। এই ভর্তুকি উঠিয়ে নেওয়ার পর সরকারের ওই কোষাগারে বেঁচে যাবে।

সংসদ ভবনে বাজার ছাড়া ৮০ শতাংশ কম দামে খাবার পাচ্ছিল সাংসদরা। ২০১৫ সাল থেকে এই বিষয়ে নিয়ে স্যোশাল মিডিয়ায় তীব্র সমালচনা হতে থাকে। প্রশ্ন ওঠে, অর্থাভাবে যখন উন্নয়নমূলক কাজগুলো আটকে থাকছে, তখন কেন সংসদ ভবনের ক্যান্টিনে ভর্তুরি খাবার দেওয়া হচ্ছে।

এই প্রশ্নকে মাথায় রেখে লোকসভার এক বৈঠকে ক্যান্টিনের খাবারের উপর থেকে ভর্তুকি উঠিয়ে দেওয়ার প্রস্তাব দেন স্পিকার ওম বিড়লা।এই প্রস্তাবকে সাংসদরা সর্বসম্মতিতে মেনে নেন।

এখন থেকে সাংসদ ভবনের ক্যান্টিনে চিকেন কারি, ফিশ কারি আর মটন কারির দাম পড়বে যথাক্রমে ৫০, ৪০ এবং ৪৫ টাকায়। চিকেন কাটলেটরে প্রতি প্লেট মিলবে ৪১ টাকায়। তন্দুরি চিকেন ৬০ টাকা, ধোসা ১২ টাকা আর কফি ৫ টাকায়। হায়দরাবাদি চিকেন বিরিয়ানির দাম পড়বে ৬৫ টাকা।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only