সোমবার, ২৩ ডিসেম্বর, ২০১৯

যোগীরাজ্যে গিয়ে তৃণমূল নেতৃত্বকে বিমানবন্দর থেকে বেরতেই দিল না পুলিশ

লখনউ এয়ারপোর্ট          –ফাইল চিত্র

পুবের কলম প্রতিবেদক: উত্তরপ্রদেশে আক্রান্ত পরিবারের পাশে দাঁড়াতে গিয়ে বাধার মুখে পড়ল তৃণমূল। এদিন আক্রান্ত পরিবারের পাশে দাঁড়াতে লখনউতে পৌঁছয় তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতিনিধি দল। এই প্রতিনিধি দলে ছিলেন প্রাক্তন সাংসদ দীনেশ ত্রিবেদী, সাংসদ নাদিমুল হক, প্রতিমা মণ্ডল ও আবির বিশ্বাস। কিন্তু তাঁরা লখনউ বিমানবন্দরে নামতেই তাঁদের আটকে দেওয়া হয়। এরপরও এগোতে গেলে তাঁদের হেনস্থাও করা হয় বলে অভিযোগ। পুলিশ তাঁদের রাজ্যে প্রবেশে বাধা দেওয়ায় বিমানবন্দরের মেঝেতে বসেই ধরণা দিতে শুরু করেন তৃণমূলের নেতারা। দীর্ঘক্ষণ বসিয়ে রাখার পর রাত সাড়ে আটটার বিমানে তৃণমূল প্রতিনিধি দলকে তুলে দেওয়া হয় বলে খবর।  
উল্লেখ্য, তৃণমূলের প্রতিনিধি দলকে রাজ্যে ঢুকতে দেবে না তা আগেই স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দিয়েছিল উত্তরপ্রদেশ প্রশাসন। উত্তরপ্রদেশের ডিজি ওপি সিং আগেই জানান, এমনিতেই উত্তরপ্রদেশের পরিস্থিতি যথেষ্ট উত্তেজনাপূর্ণ। এই অবস্থায় তৃণমূল নেতাদের ঘটনাস্থলে যেতে দিলে পরিস্থিতি আরও খারাপ হতে পারে বলে খবর। আর সে কারণেই তাঁদের বিমানবন্দরেই আটকে দেওয়া হয়।

এদিন বিমানবন্দরে দাঁড়িয়েই প্রাক্তন সাংসদ দীনেশ ত্রিবেদী ও সাংসদ নাদিমুল হক বলেন, বিমান থেকে নামতেই, পুলিশ আমাদের ঘিরে ফেলে। আমরা যেই বাসে উঠলাম, তখনই অন্য যাত্রীদের নামিয়ে দেওয়া হল। পুলিশ আমাদের রানওয়েতে একটা পরিত্যক্ত জায়গায় নিয়ে যায়। আমরা মেঝেতেই ধরনায় বসে পড়ি। ইন্টারনেট খুবই ডাউন। তিনি আরও অভিযোগ করেন, উত্তরপ্রদেশ পুলিশ তৃণমূল সাংসদ প্রতিমা মণ্ডলকে হেনস্থা করে।

অতীতে এনআরসি নিয়ে অসমে বিক্ষোভ শুরু হওয়ার পর তৃণমূলের প্রতিনিধি দলকে শিলচরে পাঠিয়েছিলেন মমতা। তখনও অসম পুলিশ তৃণমূলের প্রতিনিধি দলকে বিমানবন্দরের বাইরে বেরোতে দেয়নি। তা নিয়ে কম ধুন্ধুমার হয়নি। এদিন তেমন কিছু না হলেও, উত্তরপ্রদেশ পুলিশের বিরুদ্ধে দুর্ব্যবহারের অভিযোগ তুলেছেন তৃণমূল নেতৃত্ব।

ব্যারাকপুরের প্রাক্তন সাংসদ তথা প্রাক্তন রেলমন্ত্রী অভিযোগ করেন, ব্রিটিশ পুলিশ যেমন ধরনের আচরণ করত, একই ধরনের আচরণ করছে যোগী রাজ্যের পুলিশ। স্বাধীন ভারতের কোনও রাজ্যে পুলিশ এমন আচরণ করতে পারে তা ধারণাই ছিল না।


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only