সোমবার, ৬ জানুয়ারী, ২০২০

দিল্লির জেএনইউতে হামলার ঘটনার প্রতিবাদে সীমান্ত শহর বনগাঁয় প্রতিবাদ মিছিল

এম এ হাকিম, বনগাঁ: দিল্লির জেএনইউতে মুখোশধারী দুর্বৃত্তদের হামলার ঘটনার প্রতিবাদে সীমান্ত শহর বনগাঁয় প্রতিবাদ মিছিল করেছেন সুশীল সমাজের মানুষজন। সোমবার সন্ধ্যায় ওই প্রতিবাদ মিছিল শুরু হয় বনগাঁ শহরের কেন্দ্রস্থল ত্রিকোণ পার্ক এলাকা থেকে। এরপরে সেটি বনগাঁ শহর পরিক্রমা করে।

মিছিলে বনগাঁর কবি-সাহিত্যিক, শিক্ষক, সমাজকর্মী থেকে শুরু করে বিভিন্ন শ্রেণির মানুষজন অংশগ্রহণ করেন।

এসময় মিছিলে অংশগ্রহণকারী মানুষজন ‘শিক্ষাক্ষেত্রে নৈরাজ্য সৃষ্টিকারী বর্বর শক্তি ধ্বংস হোক-ধ্বংস হোক’, অত্যাচারী শাসক দূর হটো-দূর হটো’, ‘ভারতীয় ফ্যাসিবাদ নিপাত যাক-নিপাত যাক’, ‘জেএনইউয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের উপরে অত্যাচারের বিরুদ্ধে সমস্ত মানুষ এক হও-এক হও’, ‘ডাউন-ডাউন ফ্যাসিজম’ ইত্যাদি স্লোগানে সোচ্চার হন।

তাঁরা জেএনইউয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের উপরে অত্যাচারের বিরুদ্ধে এসময় বিভিন্ন দাবি সম্বলিত প্ল্যাকার্ড বহন করেন।

এপ্রসঙ্গে বিশিষ্ট কবি ও সাহিত্যিক দেবাশীস রায় চৌধুরী বলেন, ‘শুধু গতকালের জেএনইউয়ের ঘটনাই নয়, সম্প্রতি গোটা দেশজুড়ে অস্থিরতা তৈরি করে দেওয়া হচ্ছে। এবং মানুষের সঙ্গে মানুষের বিভেদ ও লড়িয়ে দেওয়ার প্রবণতা সৃষ্টি হয়েছে। কোনও বিষয়ে সরকারের কেউ সমালোচনা করলে তাঁকে সরাসরি ‘দেশদ্রোহী’ বলে, ‘শহুরে নকশাল’ তকমা লাগিয়ে দেওয়া হচ্ছে। প্রতিবাদী কণ্ঠস্বর একেবারেই বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে। দেশের বিভিন্ন অংশে ছাত্র আন্দোলনকে দমন করা হচ্ছে, তাঁদেরকে নিপীড়িত করা হচ্ছে।

অনেক সময় দেখা গিয়েছে সরকারি মদদপুষ্টরা ওই ঘটনায় জড়িত। এসব ক্ষেত্রে পুলিশ একেবারেই নিষ্ক্রিয় দর্শক হিসেবে থেকেছে। গোটা দেশে যেসব দমনপীড়ন চলছে সেই সবকিছুর বিরুদ্ধেই আমরা প্রতিবাদে মাঠে নেমেছি।’ মানুষের মধ্যে গৃহযুদ্ধ বাধিয়ে দেওয়ার যে আশঙ্কা সৃষ্টি হয়েছে আমরা দ্রুত তাঁর অবসান চাই বলেও কবি দেবাশীস রায় চৌধুরী বলেন।

প্রতিবাদ মিছিলে, গদ্যকার ভবানী ঘটক, দিলীপ ঘোষ, প্রবান্ধিক বিশ্বজিৎ ঘোষ, কবি জলধি হালদার, কবি সুশোভন দত্তসহ শিক্ষক, কবি-সাহিত্যিক, সমাজকর্মী ও সাধারণ মানুষজন অংশগ্রহণ করেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only