শুক্রবার, ১০ জানুয়ারী, ২০২০

মার্কিন ঘাঁটিতে হামলার আগে সাইবার হামলায় তাদের প্রতিরক্ষা প্রযুক্তি অকেজো করে দিয়েছিল ইরান!



পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক, তেহরান: মার্কিন সেনারা ইরাকের বাগদাদে ইরানি জেনারেল কাসেম সুলাইমানিকে হত্যা করা করেছিল ড্রোনের মাধ্যমে তার জবাবে আনবার প্রদেশের দুটি মার্কিন সেনাঘাঁটিতে ইরান ব্যালেস্টিক মিসাইল হামলা করে অত্যাধুনিক মার্কিন প্রযুক্তি এড়িয়ে তাদের দুদুটি সেনাঘাঁটিতে ইরানের হামলা অবাক করে দিয়েছে বিশ্বকে মার্কিনীদের ভাবাচ্ছে কীভাবে তাদের নিরাপত্তা ব্যবস্থা ভেদ করে ইরান মার্কিন সেনাঘাঁটিতে হামলা চালাল ওই হামলার পর আরও নানা তথ্য সামনে আসতে শুরু করেছেকীভাবে আমেরিকার মতো দেশের সেনাবাহিনী ইরানি হামলা রুখতে ব্যর্থ হল তা নিয়ে চলছে চুলচেরা বিশ্লেষণও এক ইরানি সংবাদ সংস্থা তাসনিম নিউজ এজেন্সি জানিয়েছে, গত বুধবার বুধবার ইরানের বিপ্লবী গার্ডের বায়ুসেনারা যখন ক্ষেপণাস্ত্র হামলা শুরু করে ইরাকে তাকা দুটি মার্কিন সেনা ঘাঁটিতে, তার আগে তারা মার্কিনীদের বিমান ড্রোন নেভিগেশন সিস্টেম অকেজো করার জন্য মুহর্মুহু সাইবার আক্রমণ করেছিল এই বিমান ও ড্রোন নেভিগেশন সিস্টেমের মাধ্যমেই বাগদাদ বিমানবন্দরে ইরানি জেনারেল কামেস সুলাইমানিকে নিশানা করা হয়েছিল তাই ইরাকের সেনাঘাঁটিতে আক্রমণের আগে ইরান সাইবার হামলা চালায়

তাসনিম নিউজ এজেন্সি জানিয়েছে, ইরানি বায়ুসেনা তাদের ফতেহ-৩১৩ এব‌ং কিয়াম মিসাইল যেদুটি ৫০০ কিলোমিটার ও ৮০০ কিলোমিটার দূরে অব্যর্থ নিশানা তাক করতে পারে, সেগুলি ব্যবহার করা হয়েছিল এই ফতেহ-৩১৩ মিসাইল এমন উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন যে আমেরিকার প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার প্রযুক্তিকে অকেজো করে দিতে সক্ষম আর র‍্যাডার জ্যাম করতে সক্ষম কিয়াম মিসাইল সারা রাত ধরে অসংখ্য আক্রমণ শানিয়ে যাচ্ছিল এই প্রথম ইরান এত উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন প্রযুক্তির সহায়তা নিয়েছে মার্কিন সেনাঘাঁটি আক্রমণের জন্য যদিও ২০১৭ সালে এই ইরানি সেনাবাহিনী সিরিয়ায় আইসিসি জঙ্গি দমনে কিয়াম মিসাইল ব্যবহার করেছিল

ওই সংবাদ সংস্থা আরও জানিয়েছে, ইরানি বাহিনী ৮ জানুয়ারি শুধু ইরাকের আইন আল আসাদ সেনাছাউনিতেই সাইবার হামলা চালিয়েছিলঅন্যদিকে, তুর্কি গণমাধ্যম ইয়েনি শাফাক জানিয়েছে, ইরানের বিপ্লবী বাহিনীর এরোস্পেস ফোর্সের প্রধান আমির আলী হাজিজাদেহ ইরানি টেলিভিশন সাইবার আক্রমেণর বিষয়ে বলেছেন, ইরাকে অবস্থিত মার্কিন দুই সামরিকঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা ছোড়ার আগে মার্কিন বিমান-ড্রোন ব্যবস্থায় ইরান সাইবার আক্রমণ করেছে তিনি বলেন, ইরানের কয়েকশ ক্ষেপণাস্ত্র প্রস্তুত করা ছিল এবং বুধবার তেহরান যখন ক্ষেপণাস্ত্র হামলা শুরু করে, তখন আমেরিকার বিমান ড্রোন নেভিগেশন সিস্টেম অকেজো করার জন্য সাইবার আক্রমণ করা হয়েছিল যদিও তিনি বলেন, মার্কিন ঘাঁটিতে ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলা আমেরিকার সৈন্যদের হত্যার উদ্দেশ নয়, মার্কিন সামরিক সরঞ্জামাদি ধ্বংসের জন্য পুরো অঞ্চলজুড়ে সিরিজ হামলা চালানো হয়এই হামলা ইরানি জেনারেল কাসেম সোলাইমানিকে হত্যার যথাযথ প্রতিশোধ বলেও জানিয়েছেন

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only