বৃহস্পতিবার, ৩০ জানুয়ারী, ২০২০

আদালতের নির্দেশে নির্যাতিতা কে বিয়ে করতে হল ধর্ষককে

ইনামুল হক বসিরহাটঃ  এই প্রথম বিয়ের সাক্ষী থাকলো বসিরহাট উপ সংশোধনাগার। জয় হল ভালোবাসার। ঠিক এক  বছর আগে  হাসনাবাদ থানার চকপাটলি গ্রামের ২৮বছরের যুবক মইদুল গাজী পেশায় শ্রমিক। একই গ্রামের ২৭ বছরের মমতাজ খাতুন নামে এক যুবতীর সঙ্গে ভালোবাসার সম্পর্ক তৈরি হয়। দীর্ঘ কয়েক মাস ধরে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ওই যুবক যুবতীকে একাধিকবার সহবাস করে বলে অভিযোগ। এরপরে মমতাজ মহিদুলকে বিয়ে করার জন্য চাপ দিতে শুরু করে। মইদুল সামান্য রাজি হলেও যুবকের পরিবারের মানতে চায় না।

মমতাজ ওই যুবকের বিরুদ্ধে হাসনাবাদ থানায় বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাস করার অভিযোগ দায়ের করে। যুবককে গ্রেফতার করে  পুলিশ।  পরে বসিরহাট মহকুমা আদালতে তোলা হলে বিচারক জেল হেফাজতের নির্দেশ দেন। দুটি পরিবারের সম্মতিতে তার  ছেলের রাজি হওয়া ।বসিরহাট মহকুমার আদালতের বিচারক ইন্দ্রানী দত্ত ও মহকুমার শাসক বিবেক ভাসমে নির্দেশ দেন নির্যাতিতাকে বিয়ে করার। বৃহস্পতিবার বসিহাট উপ সংশোধনাগারে রীতিমতো আনন্দে বিয়ে হল দুজনের। এর মধ্যে সরকারিভাবে রেজিস্ট্রি করে নেওয়া হয়। দুটো পরিবারের তরফ থেকে এই বিয়েতে বাড়ির প্রধানদের উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায়। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট সমাজসেবী অসিত মজুমদার,  জেলার সৌমাভ মুখার্জি, আইনজীবী আসিফ আলম ও সুবীরকুমার  ঘোষ প্রমুখ।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only