রবিবার, ১২ জানুয়ারী, ২০২০

রাজ্য সফরে মোদির মুখে বিদ্যাসাগর, রামমোহন, বিবেকানন্দ ও সুভাষচন্দ্র

Add caption
রামকৃষ্ণ মিশনে সন্ন্যাসীদের সঙ্গে মোদি।


চিন্ময় ভট্টাচার্য 

রাজ্যের শাসক দলের কাছে বিজেপি নেতাদের বারবার শুনতে হয়েছে, তাদের নেতারা এরাজ্যে পরিযায়ী পাখি। বিজেপি বাংলার সংস্কৃতিকে বোঝে না। না-জেনেই বিজেপি নেতারা বাংলা জয়ের স্বপ্ন দেখছেন। দু'দিনের রাজ্য সফরে এসে শনিবার ওল্ড কারেন্সি বিল্ডিংয়ের এক অনুষ্ঠানে সেই কটাক্ষের জবাব দিলেন প্রধানমন্ত্রী। বক্তব্যে গাইলেন শুধু বাংলার জয়গান, করলেন বাঙালির জয়জয়কার। বললেন, বাংলার একাধিক চাঁদ বা চন্দ্র ( সুভাষচন্দ্র, বঙ্কিমচন্দ্র, শরৎচন্দ্র, বিপিনচন্দ্র...) ভারতের আকাশকে বারবার উজ্জ্বল করেছেন। তাঁর ঘনিষ্ঠ অমিত শাহর মিছিল থেকে কলকাতায় ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার অভিযোগ উঠেছিল।  এদিন কিন্তু মোদি ঘোষণা করলেন, বিজেপি নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রীয় সরকারের উদ্যোগে ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের জন্মের দ্বিশতবর্ষ উদযাপিত হবে। বাংলার অন্যান্য মণীষীদের সম্মান দিয়ে জানালেন, কেন্দ্রীয় সরকারের উদ্যোগে একবছর ধরে রাজা রামমোহন রায়ের জন্মের ২৫০ বছর পালিত হবে। ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালে স্বাধীনতা সংগ্রামী  বাংলার বীর বিপ্লবীদের জন্য আলাদা একটি গ্যালারি তৈরি করা হবে।

তাঁর সফর ঘিরে যখন গোটা রাজ্য সিএএ, এনপিআর, এনআরসি চালুর চেষ্টার প্রতিবাদে উত্তাল, সেই সময় এদিন বক্তব্য রাখতে গিয়ে এই বিষয়গুলোকেই এড়িয়ে গেলেন প্রধানমন্ত্রী।
বক্তব্যের আদ্যপ্রান্ত বাঙালির প্রশংসায় ভরিয়ে বললেন, 'বাংলার মাটি পবিত্র ভূমি। বাংলার মাটি দেশকে পথ দেখিয়েছে। ভারতের  সংস্কৃতির পীঠস্থান কলকাতা।' তার বক্তব্যে ঘুরেফিরে এল রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, স্বামী বিবেকানন্দ, নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু, রাজা রামমোহন রায় ও ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের নাম। একাধিকবার দেশের ইতিহাসে বাংলার মহান ঐতিহ্যের কথা মনে করালেন। ঘোষণা করলেন শহরের ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালে বাংলার স্বাধীনতা সংগ্রামীদের নিয়ে তৈরি হবে একটি গ্যালারি, যার নাম হবে 'বিপ্লবী ভারত।'  

শহরে এসে মোদির এই বাংলা ও বাঙালি বন্দনায় কিন্তু রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা অন্য অঙ্ক দেখতে পেয়েছেন। তাঁদের মতে, মোদি এদিন একদিকে রাজ্যের শাসক দলের বহুদিনের কটাক্ষের জবাব দিয়েছেন। পাশাপাশি, বাংলা ও বাঙালি কেন্দ্রের বিজেপি নেতৃত্বাধীন সরকারের কাছে কতটা গুরুত্বপূর্ণ, তা-ও বোঝানোর চেষ্টা করেছেন। কারণ, আগামী বিধানসভা নির্বাচনকে পাখির চোখ করেছে বিজেপি। তাই বাংলা ও বাঙালির মন জয় করে এরাজ্যে ভোটবাক্সের অঙ্কে এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেছেন মোদি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only