রবিবার, ১২ জানুয়ারী, ২০২০

আমেরিকায় ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার তালিকায় ফের যুক্ত হতে পারে আরও কয়েকটি মুসলিম দেশ



পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক,  ওয়াশিংটন: মার্কিন ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ইমপিচমেন্টের খাড়া ঝোলায় এবার ফের পুরনো অস্ত্র বের করতে চাইছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প বছর তিনে আগে বেশ কয়েকটি দেশের বিশেষত মুসলিম নাগরিকদের মার্কিন মুলুকে প্রবশে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিলেন এবার হোয়াইট হাউস সূত্র বলছে, ফের আরও কয়েকটি দেশের নাগরিকদের আমেরিকায় প্রবেশে ফের নিষেধাজ্ঞা জারি করা হতে পারে শরণার্থী বিষয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এই মনোভাবের কথা তুলে ধরেছে আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থা এপি

তারা বলছে, আরো কয়েকটি দেশের নাগরিকদের ভ্রমণ দেওয়ার বিষয়ে চিন্তাভাবনা করছে হোয়াইট হাউজ নির্বাচনের বছরে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প অভিবাসন ইস্যুতে আরো ফোকাস করতে এমন কিছু করতে যাচ্ছেন বলে হোয়াইট হাউসের ছজন আধিকারিকের বরাত দিয়ে বিষয়টি উল্লেখ করেছে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম তবে দুজন মার্কিন আধিকারিকের বক্তব্য তুলে ধরে  মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সংবাদ সংস্থা এপি বলেছে,  এক রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে, হোয়াইট হাউজ নতুন একটি পরিকল্পনা তৈরি করেছে, যেখানে ২০১৭ সালে ভ্রমণ নিশেধাজ্ঞা জারি করা দেশগুলির তালিকায় নতুন করে আরও কযেকটি দেশকে যুক্তরাষ্ট্র ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হতে পারেযুক্ত করা হতে পারে তবে,নতুন নিষেধাজ্ঞায় যেসব দেশ অন্তর্ভুক্ত হবে, তাদের কাছে বিষয়টি অস্পষ্ট থাকবে যদিও এটি এখনো নির্ধারণ করা হয়নি বলে ওই দুই মার্কিন অফিসার জানিয়েছেন

সেই সঙ্গে যে কটি দেশকে নতুন ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার তালিকায় আনা হচ্ছে,  সে বিষয়ে স্পষ্ট করে কিছু উল্লেখ করেনি কিন্তু নিষেধাজ্ঞা পেতে যাওয়া দেশগুলো বেশির ভাগই মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ হবে বলে জানিয়েছেন মার্কিন অফিসাররা উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের ২৭ জানুয়ারি মার্কিন প্রেসিডেন্ট প্রথমে কয়েকটি মুসলিম দেশের নাগরিকদের বিরুদ্ধে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারি করেন এ নিয়ে সেদেশের সুপ্রিম কোর্টে মামলা হয় এরপর ২০১৭ সালের শেষের দিকে অনেক মামলা-মোকদ্দমার পর ছয় দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্র ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা দেয় দেশটির সুপ্রিম কোর্ট সেখানে মূলত ট্রাম্পের নির্দেশকেই বহাল রাখা হয় বর্তমানে পাঁচটি মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশসহ সাত দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্র ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে

মুসলিম দেশগুলো হলো- ইরান, লিবিয়া, সোমালিয়া, সিরিয়া ও ইয়েমেন মূলত যুদ্ধবিধ্বস্ত হওয়ায় এসব দেশের নাগরিকদের নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছিল বলে উল্লেখ করেছিল ট্রাম্প প্রশাসন আর অন্য দুটি দেশ হলো- ভেনিজুয়েলা ও উত্তর কোরিয়া

অন্য এক মার্কিন কর্মকর্তার বরাত দিয়ে এপির প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১৭ সালে প্রাথমিকভাবে এ নিষেধাজ্ঞায় যেসব দেশের নাম ছিল, কিন্তু পরবর্তীকালে দেশটির আদালত নিষেধাজ্ঞার এ তালিকা থেকে সেসব দেশের নাম বাদ দিয়েছেন এবার সেসব দেশকেই আবার নিষেধাজ্ঞা দেয়া হতে পারে
যদিও এমন পরিকল্পনার বিষয়টি অস্বীকার করেছেন হোয়াইট হাউজ মুখপাত্র হোগান গিডলি তবে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার ফলে দেশের নিরাপত্তা বেড়েছে বলে উল্লেখ করেছেন এবং এর প্রশংসাও করেছেন তিনি তিনি বলেছেন, ‘ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আমাদের দেশকে সফলভাবে রক্ষা করেছে বিশ্বজুড়ে আমাদের নিরাপত্তার খুঁটি গড়েছে তবে অনেকেই মনে করছেন, ট্রাম্প প্রশাসনের ক্ষমতা গ্রহণের তিন বছর পূর্তি উপলক্ষে কোনো ধরনের সতর্কতা ছাড়াই এমন ঘোষণা দিয়ে দিতে পারেকিন্তু তাতে ট্রাম্পের ইমিপচমেন্ট রক্ষা হবে কিনা জানা নেই

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only