শুক্রবার, ৩১ জানুয়ারী, ২০২০

আর পুনে নয়, এবার কলকাতাই নির্ণয় করবে করোনা ভাইরাসের

চিন্ময় ভট্টাচার্য
এতদিন চিকিৎসক থেকে সাজানো ওয়ার্ড--- সব ছিল। ছিল না, শুধু করোনা ভাইরাস নির্ণয়ের ব্যবস্থা। তাই, রোগীর রক্তের নমুনা সংগ্রহের পর তা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হত পুনের ‘ইনস্টিটিউট অফ ভাইরোলজি’তে। কলকাতার সেই অভাব শুক্রবার পূরণ হল। করোনা ভাইরাস নির্ণয়ের ব্যবস্থা চালু হল বেলেঘাটায়, ‘ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিক্যাল ওয়ার্ড--- ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ কলেরা অ্যান্ড এন্টেরিক ডিজিজেস’ (নাইসেড)-এ।

বৃহস্পতিবারই সব রাজ্যের মুখ্যসচিবদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্স করেছিলেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যসচিব। সেই ভিডিও কনফারেন্সে ঠিক হয়েছিল, করোনা ভাইরাসের দ্রুত পরীক্ষার জন্য বিভিন্ন রাজ্যে একটি করে ল্যাবরেটরি তৈরি করা হবে। সেই মতো, কলকাতায় একটি ল্যাবরেটরি তৈরি করা হল বলেই রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের এক আধিকারিক জানিয়েছেন। তিনি জানান, এই ল্যাবরেটরিতে করোনা ভাইরাস নির্ণয়ের জন্য জরুরি--- ‘সোয়াব, স্পাটাম এবং সিরাম’ পরীক্ষা করা হবে। এই প্রসঙ্গে ‘নাইসেড’-এর এক পদস্থ কর্তা শুক্রবার বলেন, ‘আগে আমরা পুনের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ ভাইরোলজিতে নমুনা পাঠাতাম। এখন, করোনা ভাইরাসের নমুনা পরীক্ষার জন্য নাইসেডেই পরিকাঠামো গড়ে তোলা হয়েছে।’
  
এই প্রসঙ্গে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের এক কর্তা জানিয়েছেন, এখনও পর্যন্ত কলকাতার দু’জনের শরীর থেকে নমুনা সংগ্রহ করে করোনা ভাইরাসের পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছিল। তার মধ্যে একজনের শরীরে করোনা ভাইরাসের জীবাণু মেলেনি। অন্যজনের রিপোর্ট পেতে বেশ কিছুটা সময় লাগছে। এই পরিস্থিতিতে ‘নাইসেড’ কলকাতাবাসীর কাছে বড় ভরসা হয়ে উঠতে চলেছে বলেই স্বাস্থ্যকর্তাদের আশা। তাঁরা জানিয়েছেন, এবার থেকে করোনা-সংক্রান্ত রিপোর্ট দ্রুত চিকিৎসকদের হাতে আসবে। দ্রুত রিপোর্ট হাতে পাওয়ায়– ‘নোভাল করোনা ভাইরাস’-এর প্রয়োজনীয় চিকিৎসা শুরু করতেও আর দেরি হবে না।  

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only