শনিবার, ১১ জানুয়ারী, ২০২০

পৃথিবীর প্রথম কাঁচ ভাস্কর্যে রবীন্দ্র ভাবমূর্তির ঠিকানা মুখ্যমন্ত্রীর স্বপ্নের গীতবিতান

দেবশ্রী মজুমদার, বোলপুর

মুখ্যমন্ত্রীর স্বপ্নের প্রকল্প বোলপুর লাগোয়া শিবপুরের গীতবিতান আবাসন প্রকল্পের এখন মধ্যমনি হতে চলেছে পৃথিবীর প্রথম রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কাঁচ ভাস্কর্যের ভাব মূর্তি।

একে কাঁচের ভাস্কর্যে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর! তাও আবার ভাব মূর্তি। বিশ্বে এমনটা প্রথম। এমন অনন্য শিল্প সৃষ্টি যাঁর হাত দিয়ে, জানিয়েছেন তিনি। কলাভবনের অধ্যাপক প্রখ্যাত কাঁচ ভাস্কর্য শিল্পী শিশির সাহানা বলেন, গোটা বিশ্বে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে নিয়ে এমন ভাবনা প্রথম। সৃষ্টি সুখের উল্লাসে একটু উত্তেজনা হচ্ছে বৈকি! প্রায় এক বছর ধরে পরিশ্রমের ফসল এই কাঁচের ভাস্কর্য। বাইরে থেকে স্বচ্ছ কাঁচ এনে ফার্নেসে গলিয়ে এই ভাবমূর্তি।  কাঁচের ভিতর গুরুদেবের অমর বাণী বাংলার মাটি, বাংলার বায়ু... এবং লক্ষ মানুষ অরণ্য ধ্বংস করে নিজের ক্ষতি ডেকে এনেছে। এগুলো ১২ ইঞ্চি ব্লকের। তার মাথা দেড় ফুটের। দেহের অংশ হয়ে এই লেখা ফুটে উঠেছে। যা কোন ভাবেই বাইরে থেকে তোলা যাবে না। কাঁচ গলিয়ে এই অক্ষর আকার দেওয়ার পর ঠাণ্ডা হতে পনেরো থেকে কুড়ি দিন লেগেছে।
জানা গেছে, প্রায় ৩০ লক্ষ অর্থ ব্যয় হয়েছে এই অনবদ্য সৃষ্টির জন্য। গীতবিতান টাউন শিপের কুটির শিল্প কেন্দ্রে প্রকৃতির নিচে শোভা পাবে সাড়ে তেরো ফুট দীর্ঘ এই শিল্প। ভিতরে থাকছে আলো। তাই অন্ধকারে দেখতে অসুবিধা হবে না। শিল্পী জানান, সারা পৃথিবীর বুকে প্রথম কাঁচ দিয়ে এমন ভাস্কর্য নির্মান হলো। 

কলাভবনের অধ্যাপক প্রখ্যাত কাঁচ ভাস্কর্য শিল্পী শিশির সাহানা হাত দিয়ে এই রবীন্দ্রনাথের ভাস্কর্য রুপ পেয়েছে।বিজ্ঞান,  কারিগরি দক্ষতা ও সৃজনশীলতা  এই তিনের মিলনে সৃষ্টি কাঁচ ভাস্কর্য টি দর্শকদের অভিভূত করবে । 
একের পর এক ৫০ টি বেশি কাঁচ কে এক সঙ্গে জোড়া লাগিয়ে তাকে ছাঁচে তৈরি করে এই ভাস্কর্য নির্মান করা হয়েছে। এই কাছে দুজন কলা ভবনের ছাত্র কাজ করেছে। হিডকোর তত্ত্বাবধানে গীতবিতান হাউজিং প্রকল্পের কাজ চলছে জোড় কদমে। হিডকোর পক্ষ্য থেকে শিশির বাবুকে কাঁচ দিয়েই রবীন্দ্রনাথের ভাস্কর্য নির্মানের জন্য আগ্রহ করা হয়। শিল্পীর কথায়, এটা চরম চ্যালেঞ্জিং কাজ। সারা পৃথিবীর বুকে কাঁচ কে ভাস্কর্যের মাধ্যম হিসাবে ব্যবহার করে এত বড় সাড়ে ১৩ ফুটের রবীন্দ্রনাথের ভাব মূর্তি আর কোথাও নেই। যেটা এক মাত্র বোলপুরের গীতবিতান আবাসন প্রকল্পে তৈরি হল।
   
কলা ভবনের প্রাক্তন অধ্যক্ষ শিল্পী শিশির সাহানা এমন কাঁচ ভাস্কর্যে শিল্পী। তার কথায়।, এটা ভীষন চ্যালেঞ্জ ছিল। আমি এই ভাস্কর্য মধ্যে কোথাও রবীন্দ্রনাথের প্রতি মূর্তি করতে চাইনি। উল্টে ভাব মূর্তি করার চেষ্টা করেছি। যেখানে আমার লক্ষ্য ছিল ভাস্কর্য মাধ্যমে ফুটে উঠুক বাঙালির  প্রাণের রবি ঠাকুর।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only