শুক্রবার, ৩ জানুয়ারী, ২০২০

মমতা যতদিন আছেন, পশ্চিমবঙ্গে এন আর সি ও ক্যা লাগু হবে নাঃ অনুব্রত



দেবশ্রী মজুমদার, রামপুরহাট, ৩ জানুয়ারি ঃ “ বাংলাদেশের মুসলিম কি মানুষ নয়? কেন তাদের তাড়ানো হবে?  ২০২৪ সালে মোদী এ দেশে থাকবেন না। তাঁকেও বিদেশে পালাতে হবে”।  এভাবেই শুক্রবার বিকেলে নলহাটি ১ নম্বর ব্লকের হরিপ্রসাদ হাইস্কুল মাঠে দলের জনসভায় বিজেপির বিভেদকামী প্রচেষ্টাকে  বার্তা দিলেন তৃণমূলের বীরভূম জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। এদিন এন আর সি ও সি এ এ পশ্চিমবঙ্গে লাগু হবে না যতদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আছেন। পাশাপাশি, যারা সার্ভে করতে আসেন,  তাদের ঢিল মারার বার্তা দেন তিনি।

     সংশোধনী নাগরিকত্ব আইনের বিরোধিতা করে ব্লকে ব্লকে সভা করছেন অনুব্রত মণ্ডল। এদিন ছিল নলহাটি ১ নম্বর ব্লকের সভা। সভায় উপস্থিত ছিলেন কৃষিমন্ত্রী আশিস বন্দ্যোপাধ্যায়, বোলপুরের সাংসদ অসিত মাল, জেলা পরিষদের সভাধিপতি বিকাশ রায়চৌধুরী, নলহাটির বিধায়ক মইনুদ্দিন সামস, দলের জেলা সহ সভাপতি সৈয়দ সিরাজ জিম্মি, নলহাটি পুরসভার চেয়ারম্যান রাজেন্দ্র প্রসাদ সিংহ।

অনুব্রত বলেন, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সই না করলে এরাজ্যে এনআরসি, সিএএ হবে না। রাষ্ট্রপতি শাসন কিংবা রাজ্যপালকে সই করিয়ে আইন চালু করতে গেলে আমরাও ঘরে বসে থাকব না। আন্দোলন করে রুখে দেব”। এপরেই কর্মী সমর্থকদের উদ্দেশ্যে বলেন, “ আপনাদের সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী আছেন”। বাংলাদেশী মুসলিমদের সমর্থনে অনুব্রত মণ্ডল বলেন, “আর দেশ ভাগ করতে দেওয়া হবে না।  এরপরেই প্রধানমন্ত্রীকে কটাক্ষ করে বলেন, “তোমার মুখটা সুন্দর। কিন্তু ভিতরটা তেতো। ফলে তুমি নিজের মুখ ছাড়া কাউকে দেখতে পাওনা। আর অমিত শা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী হয়ে যা ইচ্ছে তাই করছে। সামনে দিল্লি, উত্তরপ্রদেশ, বিহারের নির্বাচনে হারবে। দিয়ে তোমাকে লন্ডন, আমেরিকা কিংবা ফ্রান্স চলে যেতে হবে। ভারতবর্ষে তোমাদের জায়গা নেই”। কৃষিমন্ত্রী আশিস বন্ধ্যোপাধ্যায় প্রধানমন্ত্রী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে কটাক্ষ করে বলেন, “আপনাদের বাবা, মা, দাদুদের জন্ম শংসাপত্র আছে তো। বলুন আপনারা যে পদ্ধতিতে ওই শংসাপত্র বের করেছেন আমরাও সেই পদ্ধতিতে বের করব”।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only