শুক্রবার, ৩১ জানুয়ারী, ২০২০

‘শার্জিলের হাত কেটে ফেলা উচিৎ’ শার্জিলকে চরম আক্রমণ শিবসেনার

নয়াদিল্লি, ৩১ জানুয়ারি­: শিবসেনার নিশানায় এবার জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র শার্জিল ইমাম। তাদের বক্তব্য, ‘গোটা মুসলিম সম্প্রদায়ের মাথা কেটে দিয়েছে শার্জিল ইমাম। এবার ওর হাতে কেটে ফেলা উচিৎ’। 

দেশদ্রোহের মামলায় গ্রেফতার হয়েছেন শাহিনবাগ প্রতিবাদের অন্যতম প্রধান উদ্যোক্তা শার্জিল ইমাম। তারপর থেকেই শিবসেনার মুখপত্র ‘সামনা’-র সম্পাদকীয়তে শার্জিলের বিরোধিতা করে লেখা হচ্ছিল। এমনকী শার্জিলের রাজনীতি বন্ধের দাবি জানানোর পাশাপাশি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে আর্জি জানানো হয়, এই ধরণের কীটদের দ্রুত খতম করার। এবার ফের একবার আক্রমণাত্মক বক্তব্য ফুটে এল ‘সামনা’-য়। সেখানে লেখা হয়েছে, ‘গোটা মুসলিম সম্প্রদায়ের মাথা কেটে দিয়েছে শার্জিল ইমাম। ওর হাত কেটে জাতীয় সড়কের ওপর চিকেন নেক করিডোরে ঝুলিয়ে দেওয়া উচিত’। শার্জিলকে তীব্র সমালোচনাও করা হয়েছে। ‘হিন্দু-মুসলমানের মধ্যে বিরোধ বাড়ানোর চেষ্টা চলছে। ইরাক ও আফগানিস্তানে যেরকম নৈরাজ্য ও গৃহযুদ্ধের মতো পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে, এদেশেও ঠিক সেই রকম করার চেষ্টা চলছে।’

দেশদ্রোহের মামলায় বিহারের জহানাবাদের কাকো গ্রাম থেকে জেএনইউ-এর গবেষক শার্জিল ইমামকে গ্রেফতার করে পুলিশ। দিল্লিতে এনে চলছে ম্যারাথন জেরার পর্ব। পুলিশের দাবি, জেরার মুখে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল ভিডিয়োটির সত্যতা স্বীকার করেছে শার্জিল। ওই ভিডিয়োতে তাঁকে বলতে শোনা যায়, অসমকে ভারত থেকে আলাদা করে দিতে হবে। একটি সরু অংশের মাধ্যমে উত্তর-পূর্ব ভারত দেশের মূল ভূখণ্ডের সঙ্গে জুড়ে রয়েছে। লাখ পাঁচেক মুসলিম ঘাঁটি গেড়ে বসে পড়লেই, উত্তর-পূর্বকে ভারত থেকে বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া যাবে। তাতেই হুঁশ ফিরবে মোদি সরকারের’। শার্জিলের অবশ্য দাবি, তাঁর বক্তব্যের একটা অংশ তুলে নেওয়া হয়েছিল।




একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only