রবিবার, ৫ জানুয়ারী, ২০২০

উত্তরপ্রদেশ পুলিশের ভূমিকা রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের নামান্তর: জামায়াত

নয়াদিল্লি, ৫ ডিসেম্বর: একদিকে যখন জামায়াতে ইসলামি হিন্দ উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকে অবিলম্বে বরখাস্তের দাবি জানাছে, তখন তাদের গুরুতর অভিযোগ উত্তরপ্রদেশ পুলিশের বিরুদ্ধেও। জামায়াতের অভিযোগ, নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের প্রতিবাদে বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে উত্তরপ্রদেশের পুলিশ যে পদক্ষেপ নিয়েছে তা ’রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের পাঠ্যপুস্তক মামলা’। জামায়াত দাবি করেছে, নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদকারীদের উপর উত্তরপ্রদেশের পুলিশ যে বর্বরতা চালিয়েছে তার উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত করতে হবে। সেই সঙ্গে পাকিস্তানের নানখানা সাহিব গুরুদ্বারে যে হামলার ঘটনা ঘটেছে তার চরম নিন্দা করেছে জামায়াত।

এক সাংবাদিক সম্মেলনে জামায়াতে ইসলামি হিন্দের প্রেসিডেন্ট সৈয়দ সাদাতুল্লাহ হুসাইনি বলেন, নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের প্রতিবাদকারীদের উপর উত্তরপ্রদেশ পুলিশ যে পদক্ষেপ নিয়েছে তা রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের শামিল। তাই জামায়াতের দাবি, জনগণকে সুরক্ষা দেওয়ার সাংবিধানিক অধিকার পালন না করায় উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী অবিলম্বে বরখাস্ত করতে হবে।

তার আরও অভিযোগ, রাষ্ট্রীয় ক্ষমতাকে ব্যবহার করে উত্তরপ্রদেশ সরকার মুসলিমদের নিশানা করেছে। ফলে, যোগী আদিত্যনাথ সংবিধানের অধিকার রক্ষা করতে পারেননি। তাই তাকে বরখাস্ত করতে হবে।
জামায়াতে ইসলামির ভাইস প্রেসিডেন্ট মুহাম্মদ সালিম ইঞ্জিনিয়ার বলেন, এটা দুর্ভাগ্যজনক যে নাগরিকত্ব সংশাধনী আইনের বিরোধিতা করতে গিয়ে বহু মানুষ মারা যাচ্ছেন পুলিশের গুলিতে। তাদের ক্ষতিপূরণের ব্যাপারে মোদি একটা কথাও বলছেন না। তিনি বলেন, নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন যাতে চালু না হয়  তার জন্য জামায়াতে ইসলামি হিন্দ অবিজেপি মুখ্যমন্ত্রীদের কাছে আবেদন জানিয়ে চিঠি লিখেছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only