সোমবার, ৬ জানুয়ারী, ২০২০

মেলা নিয়ে রিভিউ কমিটির বৈঠক, চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে সুপ্রিম কোর্ট

পুবের কলম, ওয়েব ডেস্ক: বিশ্বভারতীর কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারে পৌষ মেলা রিভিউ বৈঠক করলেন উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তী উপস্থিত ছিলেন ই সি মেম্বার সুশোভন ব্যানার্জি শান্তিনিকেতন চ্যারিটেবল ট্রাস্টের সাম্মানিক সম্পাদক অনিল কোনার।

জানা গেছে, সেই রিভিউ কমিটির বৈঠকে উপস্থিত সদস্যরা বেশ কয়েকটি বিষয়ে তাঁদের মতামত ব্যক্ত করেছেন। সেখানে উপাচার্যের বিরুদ্ধে সেক্সুয়াল হ্যারাসমেন্ট  সহ জনসংযোগ আধিকারিক অনির্বাণ সরকার, যুগ্ম কর্মসচিব সঞ্জয় ঘোষকে দেখে নেওয়ার হুমকি ইত্যাদি বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়া, শিক্ষক, কর্মী পরিষদের তরফে নিন্দার কথা উল্লেখ করা হয়।

পাশাপাশি, এও বলা হয়, গ্রীন ট্রাইব্যুনালের নির্দেশ মেনে মেলা চার দিন করা হয়। কিন্তু তা সত্বেও বোলপুর ব্যবসায়ী সমিতির সুনীল সিং ও সুব্রত ভকত মেলা ক্যাম্পে এসে জনসংযোগ আধিকারিক অনির্বাণ সরকার, যুগ্ম কর্মসচিব সঞ্জয় ঘোষকে দেখে নেওয়ার হুমকি দেন। এছাড়াও উপাচার্যের বিরুদ্ধে সর্বসমক্ষে মিথ্যা সেক্সুয়াল হ্যারাসমেন্টের অভিযোগ করা হয় এবং তা থানায় দায়ের করা হয়। পরের দিন বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে তা প্রকাশিত হয়।

অন্যদিকে, গ্রীন ট্রাইব্যুনালের পক্ষে ১০ লক্ষ টাকা কেন ফাইন করা হবে না, তার কারণ দর্শানোর নোটিশ পাঠানো হয়। লোক ও অর্থবল না থাকা সত্ত্বেও সুষ্ঠু ভাবে মেলা পরিচালনা করে এধরনের অসুবিধার সম্মুখীন হলে ভবিষ্যতে এই পৌষ মেলা চালানো দায় হয়ে উঠবে বলে সন্দেহ প্রকাশ করা হয়।
তবে ট্রাস্টের পক্ষে অনিল কোনার বলেন, সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে রাজ্যের মুখ্যসচিবের সভাপতিত্বে জেলাশাসক, উপাচার্য, পরিবেশ দূষণ পরিষদ, বোলপুর পুরসভা নিয়ে এক কমিটি গঠন করা হয়। তারা ৩১ জানুয়ারির মধ্যে সুপ্রিম কোর্টে সেই রিপোর্ট জমা দেবেন। গ্রীন ট্রাইব্যুনাল সেই রিপোর্ট দেখে ২৪ ফেব্রুয়ারি রায় দেওয়ার পর, মেলার ভবিষ্যৎ জানা যাবে। বিষয়টি বিচারাধীন। তাই এই মুহূর্তে কিছু বলা যাবে না।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only