মঙ্গলবার, ৭ জানুয়ারী, ২০২০

লিবিয়ায় মোতায়েন শুরু তুর্কি সেনার, হুঁশিয়ারি ট্রাম্পের


আঙ্কারা, ৭ জানুয়ারি: লিবিয়ায় এখন চলছে রাষ্ট্রসংঘ অনুমোদিত সরকার। রাষ্ট্রসংঘ সমর্থিত গভর্নমেন্ট অব ন্যাশনাল অ্যাকর্ডকে (জিএনএ) এবার সামরিক সহায়তা দিতে এগিয়ে এল তুরস্ক। লিবিয়ার বর্তমার সরকারের কাছ থেকে আর্জি পেয়ে তুরস্কের পার্লামেন্ট আলোচনায় বসে সেখানে তুর্কি সেনা পাটানো হবে কিনা। সেই আর্জিতে সায় মিলেছে তুরস্কের পার্লামেন্টের। ফলে, এবার তুরস্ক লিবিয়ায় সৈন্য মোতায়েন করবে।তুরস্ক পার্লামেন্ট জানিয়েছে, লিবিয়ায় রাষ্ট্রসংঘ সমর্থিত সরকার টিকিয়ে রাখার লক্ষ্যে তারা এ পদক্ষেপ নিয়েছে। এর প্রেক্ষিতে যুদ্ধ বিধ্বস্ত লিবিয়ায় যেকোন ‘বিদেশি হস্তক্ষেপের’ ব্যাপারে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প কঠোর হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন। হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র হোগান গিডলে এক বিবৃতিতে বলেছেন, আঙ্কারার হস্তক্ষেপের জবাবে ট্রাম্প টেলিফোন করে তুর্কি প্রেসিডেন্ট এরদোগানকে বিদেশি হস্তক্ষেপ লিবিয়ায় পরিস্থিতি জটিল কেরে তুলবে বলে জানিয়েছেন।তুরস্কের এই পদক্ষেপের বিরুদ্ধে গিয়ে মিশরের পক্ষ থেকেও বলা হয়, লিবিয়ার ব্যাপারে তুরস্কের পদক্ষেপ আন্তর্জাতিক আইন ও নিরাপত্তা পরিষদের প্রস্তাবের ‘সরাসরি লঙ্ঘন’। এছাড়া ইসরাইল, সাইপ্রাস ও গ্রীসও তুরস্কের এমন পদক্ষেপকে আঞ্চলিক স্থিতিশীলতার ক্ষেত্রে একটি ‘চরম হুমকি’ হিসেবে অভিহিত করেছে।
উল্লেখ্য, ন্যাটো সমর্থিত আন্দোলনে ২০১১ সালে লিবিয়ার প্রেসিডেন্ট মুয়াম্মর গাদ্দাফি ক্ষমতাচ্যুত ও নিহত হওয়ার পর থেকেই লিবিয়ায় একটি বিশৃংখলা পরিস্থিতি বিরাজ করছে। দেশটির পূর্ব ও পশ্চিমের প্রতিদ্বন্দ্বী প্রশাসন ক্ষমতার জন্য লড়াই করছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only