মঙ্গলবার, ১৪ জানুয়ারী, ২০২০

২০১০ শিক্ষাবর্ষে ১৮ পুরস্কুলে ইংরেজিকে প্রথম ভাষা করল পুরসভা

সাহাজান পুরকাইতঃ কলকাতা  পুরসভার সমস্ত স্কুলগুলিকে ইংরেজি মাধ্যমে রুপান্তরিত করা হবে বলে গত বছরের শেষ দিকে সিদ্ধান্ত নিয়েছিল পুরকর্তৃপক্ষ। সিদ্ধান্ত মতাে ২০২০ শিক্ষাবর্ষের শুরু থেকেই পুরসভার ১৮ টি স্কুলে বাংলা, হিন্দি, উর্দুর পরিবর্তে ইংরেজিকে প্রথম ভাষার স্বীকৃতি দিয়ে ক্লাস শুরু হয়েছে বলে মঙ্গলবার পুরসভা সূত্রে খবর। একই সঙ্গে  বাংলা মাধ্যমের ১২৫ জন শিক্ষককে ইংরেজি মাধ্যমে শিক্ষকতার সুযােগ দিতে  সােমবারের মেয়র পারিষদ বৈঠকে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। মিউনিসিপ্যাল সার্ভিস কমিশনের নিয়মনীতি অনুযায়ী ওই ১২৫ জন শিক্ষককে ইংরেজি মাধ্যম স্কুলে পড়ানাের ব্যবস্থা করা হবে বলে জানাগেছে। 

এদিন এক পুরআধিকারিক জানান, মেয়র ফিরহাদ হাকিমের নির্দেশে চাহিদার ভিত্তিতে পুরস্কুলগুলিকে ইংরেজি মাধ্যম করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে, পুরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ডের ৩-এ  নীলমণি মিত্র রাে’র বাংলা মাধ্যম পুরস্কুলকে ইংরেজি মাধ্যম করা হয়েছে । ২০ নম্বর  ওয়ার্ডের ২০১-বি বৃন্দাবন বসাক স্ট্রিটের সকালের ইংরেজি মাধ্যমের সঙ্গে দুপুরের বাংলা মাধ্যম জুড়ে ইংরেজি মাধ্যমের ডে স্কুল করে দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে ২৮ নম্বর ওয়ার্ডের বিপ্রদাস স্ট্রিটের হিন্দি ও ইংরেজি মাধ্যম স্কুল দুটিকে জুড়ে ডে  ইংরেজি মাধ্যম করা হয়েছে। ৫৭ নম্বর মাধ্যম করা হয়েছে ওয়ার্ডের ১ নম্বর ডিসি দে রােডের উর্দু মাধ্যমকে ইংরেজি। অন্যদিকে ১২৩ নম্বর ওয়ার্ডের বৈদ্যপাড়ার বাংলা  ও হিন্দি মাধ্যমের দুটি স্কুল জুড়ে ইংরেজি মাধ্যম করা হয়েছে। এরকম ভাবেই মােট ১৮ টি স্কুলকে ইংরেজি মাধ্যম করা হয়েছে। যেখানে বাংলা, হিন্দির মতাে বিষয়গুলি বাদ দিয়ে বাকি ইতিহাস, ভূগােল, অঙ্কের মতাে বিষয়গুলি ইংরেজিতে পড়ানাে হবে ।

এদিন শিক্ষা বিভাগের মেয়র পারিষদ অভিজিৎ মুখার্জি বলেন, ধীরে ধীরে পুরসভার সব স্কুলকে ইংরেজি মাধ্যম করা হবে। মাতৃভাষা বাদে বাকি বিষয়গুলি ইংরেজিতে পড়ানাে হবে। দ্বিতীয় ভাষা হিসাবে বাংলা, হিন্দি কিংবা উর্দুর মতাে ভাষাগুলি থাকবে। এরফলে পুরসভার স্কুলে পড়া শেষ করে ছাত্রছাত্রীরা সরাসরি ইংরেজি মাধ্যম স্কুলের পঞ্চম শ্রেণীতে ভর্তি হতে পারবে। স্বপ্ন পূরণ হবে শহরের গরীব পরিবারের অভিভাবকদের। শুধুতাই নয়, ছাত্রছাত্রীর সংখ্যাও বাড়বে বলে পুরকর্তৃপক্ষ আশাবাদী ।

বর্তমানে কলকাতা পুরসভার অধীনে ২৫৬টি স্কুল পরিচালিত হয়। এরমধ্যে বেশ কয়েকটি স্কুলে আগেই ইংরেজিকে প্রথম ভাষা করা হয়েছিল। এবছর থেকে সেই তালিকায়  আরও ১৮ টি স্কুলের নাম নথিভুক্ত হয়েছে। স্কুলগুলিতে সকাল ৮ টা থেকে বেলা ২ টা পর্যন্ত ক্লাস হচ্ছে। এখন সব মিলিয়ে মােট ২৪ জন ইংরেজি মাধ্যমে পড়ানাের শিক্ষক রয়েছেন। নতুন করে ১২৫ জনকে পড়ানাের সুযােগ দেওয়া হলে শিক্ষকের সংখ্যা বেড়ে ১৪৫ হবে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only