বৃহস্পতিবার, ৩০ জানুয়ারী, ২০২০

শিশু পড়ুয়ারা সিএএ বিরোধী নাটক করায় দেশদ্রোহের কোপে শাহিন স্কুল, দেশদ্রোহের অপবাদের বিরুদ্ধে আইনি লড়াই চালিয়ে যাব: চেয়ারম্যান কাদির

আবদুল বারি মাসুদ, বিদার: কর্নাটকে সংখ্যালঘু শিক্ষার বিকাশে বিশেষ ভূমিকা রয়েছে শাহিন গ্রুপ অফ ইন্সটিটিউশনের। এই গোষ্ঠীর পরিচলনায় কর্নাটকসহ সাত রাজ্যে ৪৩টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান রয়েছে। এছাড়া ডাক্তারির প্রবেশিকা পরীক্ষা নিট-এর আবাসিক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র রয়েছে, যেগুলোতে বিনামূল্যে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। তবে, শুধু মুসলিমরা নয়, হিন্দু সম্প্রদায়ের বহু গরিব ছেলেমেয়েই এই সংস্থা থেকে প্রশিক্ষণ থাকে। 

প্রতি বছর এই সংস্থার প্রশিক্ষণ কেন্দ্র থেকে নিট সহ বিভিন্ন পরীক্ষায় উজ্জ্বল স্বাক্ষর রেখেছে পড়ুয়া। শিক্ষায় বিশেষ অবদানের জন্য কর্নাটক সরকারের সেরা পুরস্কারও পেয়েছে শাহিন গোষ্ঠী। কিন্তু সেই স্কুলের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রছাত্রীদের অভিনীত নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন বিরোধী নাটকের জেরে শাহিন গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে দেশদ্রোহী তকমা দেওয়া হয়েছে। এর বিরুদ্ধে আইনী লড়াই চালানো হবে বলে জানিয়েছেন শাহিন গ্রুপ অফ ইন্সটিটিউশনের চেয়ারম্যান ড. আবদুল কাদির। তিনি পুবের কলমকে জানান, শাহিন গ্রুপ শুধু একটি শিক্ষা সংগঠন নয়, এটি একটি সামাজিক সংগঠনও। তাই এই সংগঠনের বিরুদ্ধে মিথ্যা অপবাদের বিরুদ্ধে আদালতের শরণাপন্ন হব।

উল্লেখ্য, কর্ণাটকের বিদারে শাহিন গ্রুপ পরিচালিত একটি স্কুলের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রছাত্রীরা নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন বিরোধী একটি নাটক করে। সেই নাটকের ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট করার পর স্থানীয় এক সমাজকর্মী নীলেশ রাক্সাল শাহিন গ্রুপের বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতার অভিযোগ আনে স্থানীয় নিউটাউন থানায়। তার অভিযোগের ভিত্তিতে ওই স্কুল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে ভারতীয় ফৌজদারি দণ্ডবিধির ১২৪-এ এবং ৫০৪ ধারায় দেশদ্রোহিতার মামলা রুজু  হয়। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only