শুক্রবার, ৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২০

প্রায় এক বছর মহাকাশে থেকে পৃথিবীতে ফিরে রেকর্ড মার্কিন মহিলা নভোশ্চরের

একটানা ৩২৮দিন মহাকাশে থেকে রেকর্ড করলেন নাসার নভোশ্চর ও ইঞ্জিনিয়ার মার্কিন মহিলা ক্রিস্টিনা কোচ। তিনিই প্রথম মহিলা নভোশ্চর যিনি প্রায় ১১ মাস  মহাকাশে থেকে পৃথিবীতে ফিরলেন।এর আগে মহিলা মহাকাশচারীদের মধ্যে মধ্যে রেকর্ড ছিল পেগি উইটসনের। তিনি টানা ২৮৮ দিন মহাকাশে অবস্থান করেছিলেন। তার রেকর্ড ভেঙে ফেলায় উচ্ছ্বসিত ক্রিস্টিনা। যদিও সব মিলিয়ে মহাকাশে দীর্ঘদিন থাকার রেকর্ড এখনও পেগি উইটসনের দখলে। তিনি তিনবার মহাকাশে পাড়ি দিয়েছিলেন। তাই  সবমিলিয়ে ৬৬৫ দিন মহাকাশে থাকার রেকর্ড এখনও অক্ষুণ্ন। মার্কিন মহিলার এই কৃতিত্বের জন্য প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্রিস্টিনাকে সমগ্র নারী সমাজের জন্য অনুপ্রেরণা হিসেবে অভিহিত করেছেন।  সেই সঙ্গে বলেছেন ক্রিস্টিনার জন্য মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে তিনি গর্বিত।

গত ১৪ মার্চ নাসার নভোশ্চর নিক হেগ এবং রুশ মহাকাশচারী আলেক্সি ওভচিনিনের সঙ্গে মহাকাশ যানে পাড়ি দিয়েছিলেন। ৩২৮দিন মহাকাশে বিচরণ করার পর  কাজাখস্তানের প্রত্যন্ত শহর ঝেজকাজগানে অবতরণ করেন বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় বিকাল ৩.১২ মিনিটে। তার সঙ্গে অবতরণ করেন সউজ কমান্ডার আলেক্সান্ডার স্করতসোভ এবং ইতালির মহাকাশ সংস্থা ইউরোপিয়ান স্পেস এজেন্সির লুসা পারমিটানো।

এই সাফল্যের পর মার্কিন মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র নাসা আগামীতে চাঁদে মানুষ পাঠানোর কথা ভাবছে। 
নাসা সূত্র জানিয়েছে, ক্রিস্টিনা কোচ মহাকাশ যানে চড়ে ৫২৪৮ বার পৃথিবী কক্ষ পরিভ্রমণ করেছে, যা প্রায় ১৩.৯ কোটি মাইলের পথ। নাসার বিজ্ঞানীরা বলছেন, এই পরিভ্রমণ চন্দ্র কক্ষে ২৯১ বার যাতায়ত করার শামিল। এগারো মাস মহাকাশে তাকার সময় কোচ ছ ছ বার মহাকাশের স্তর ভেদ করেছেন। তিনি সাক্ষী থেকেছেন প্রায় এক ডজন মহাকাশ যানের প্রবেশ ও প্রস্থানের।

নাসা ক্রিস্টিনোর এই সাফল্য নিয়ে বলেছে, প্রায় একবছর মহাকাশে ছিলেন ক্রিস্টিনো। তার তার উপর মাধ্যকর্ষণ শক্তির কত প্রভাব পড়েছে তা নিয়ে গবেষণা করতে সুবিধা হবে মহাকাশ বিজ্ঞানীদের।  আর ওই গবেষণার উপর ভিত্তি করে ভবিষ্যতে চাঁদে মহাকাশচারী পাঠানোর উদ্যোগ নেবে নাসা। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only