মঙ্গলবার, ৪ ফেব্রুয়ারী, ২০২০

দেশে লাভ জিহাদ নিয়ে কোনও অভিযোগ নেই­: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক

লাভ জিহাদ। ভালোবাসার ফাঁদে জড়িয়ে ইসলাম ধর্মে ধমান্তরিত করার কৌশলের পোশাকি নাম হিসেবে এই শব্দবন্ধটি বিগত কয়েক বছর ধরে বেশ চর্চায় রয়েছে দেশজুড়ে। বিশ্বহিন্দু পরিষদ– রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের মতো সংগঠনগুলি বারবার এটা নিয়ে সরব হয়েছে। বছর কয়েক আগে কেরলের সাফিন জাহান এক চিকিৎসক তরুণীকে (হাদিয়া) বিয়ে করলে দেশজুড়ে তোলপাড় শুরু হয়। সাফিন ভালোবাসায় ভুলিয়ে হিন্দু মেয়েকে মুসলিম করেছেন– এমনই অভিযোগ ওঠে। পরে অবশ্য সুপ্রিম কোর্ট বিতর্কের ইতি ঘটায় সমস্ত অভিযোগ ভুল প্রমাণিত করে। কিন্তু লাভ জিহাদ শব্দটির শিকড় উৎপাটিত হয়নি। হিন্দু-মুসলিম বিয়ে দেখলেই এখনও দেশের বেশকিছু সংগঠন একে লাভ জিহাদের চশমায় দেখেন। কিন্তু এটা যে আসলে চিন্তার জগতেই ঘটে থাকে– বাস্তবে এর কোনও উদাহরণ বা অভিযোগ নেই---সেই কথাই মঙ্গলবার সংসদে স্পষ্ট করল বিজেপি সরকার। বিজেপিরই বহু নেতা-মন্ত্রী তথাকথিত লাভ জিহাদের বিরুদ্ধে গলা ফাটিয়েছেন। কিন্তু সমস্ত দাবিকে অসার হিসেবে উড়িয়ে দিয়ে কেন্দ্রের স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী জি কিষাণ রেড্ডি মঙ্গলবার সংসদে জানিয়ে দিয়েছেন– দেশের কোনও আইনে লাভ জিহাদের কোনওরকম উল্লেখ নেই। কেন্দ্রের কোনও সংস্থাই লাভ জিহাদ নিয়ে কোনও অভিযোগ আনেনি বা জমা দেয়নি।      

মন্ত্রী কিষাণ রেড্ডি আরও বলেন, সংবিধানের ২৫ নং ধারা অনুযায়ী নাগরিকদের যে কোনও ধর্মের প্রচার ও পালন করার স্বাধীনতা রয়েছে। সুপ্রিম কোর্ট– কেরলের হাইকোর্ট এই দৃষ্টিভঙ্গিকে বারবার স্বীকার করেছে। লাভ জিহাদ নিয়ে দেশে বিতর্ক রয়েছে। কিন্তু এ ব্যাপারে কোনও আইনে কিছু বলা নেই। আর এ নিয়ে কেন্দ্রের কোনও তদন্তকারী সংস্থাও কোনও অভিযোগ করেনি এ যাবত। কেরলে দুই ভিন্ ধর্মের ছেলেমেয়ের বিয়ে নিয়ে দুটি কেস ছিল। সেগুলি কেন্দ্রীয় সংস্থা এনআইএ তদন্ত করেছিল। কোনও অভিযোগ প্রমাণিত হয়নি। 

বিজেপি সরকারের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর এই বিবৃতিতে কার্যত ব্যাকফুটে সংঘ পরিবার। তারা বারবারই দাবি তুলেছে, লাভ জিহাদের মাধ্যমে মুসলিমরা দেশে তাদের জনসংখ্যা বাড়াচ্ছে। কিন্তু খোদ কেন্দ্র সরকার মঙ্গলবার আরেকবার স্পষ্ট করল, নো জিহাদ, অনলি লাভ---এই কারণেই দুই ভিন্ ধর্মের ছেলেমেয়েদের বিয়ের ঘটনা ঘটছে। লাভ জিহাদের কোনও বাস্তব অস্তিত্ব নেই।        

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only