মঙ্গলবার, ১৭ মার্চ, ২০২০

দুদিনে ২০টি কুকুরের মৃত্যু, বীরভূমে আতঙ্ক

ছবি-্তথাগত চক্রবর্তী 

দেবশ্রী মজুমদার,  নলহাটি

একে করোনা আতঙ্কে মানুষের নাজেহাল অবস্থা। তার ওপর মাত্র দু দিনে অজানা কারণে মৃত্যু হয়েছে প্রায় কুড়িটি কুকুরের। নলহাটি-২ ব্লকের গোটা কুমারসন্ডা গ্রামে বাসিন্দাদের এখন ত্রাহি ত্রাহি অবস্থা। পাশাপাশি হাজিপাড়া, পশ্চিম পাড়া এলাকাতে ঘটনার প্রভাব পড়েছে। তাই এলাকাবাসীর ঘুম কেড়েছে এই ঘটনা।

ব্লক প্রাণীবন্ধুরা গ্রামে ঘুরে গেলেও আতঙ্ক পিছু ছাড়ছে না এলাকার বাসিন্দাদের। কারণ কি কারণে এই ভাবে এতগুলি কুকুরের মৃত্যু হয়েছে তা নিশ্চিত করে বলা যায়নি। তবে মৃত কুকুরগুলির দেহ পুঁতে দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন ব্লক প্রাণিবন্ধুর কর্মীরা। 
গ্রামবাসীদের দাবি, দু দিনে কমপক্ষে ২০ টি পথকুকুর মারা গিয়েছে। জেলা পশু হাসপাতালের চিকিৎসক সৌরভ কুমার জানান, সিজনচেঞ্জের সময় কুকুররা বিভিন্ন ভাইরাসে আক্রান্ত হয়। তবে একসঙ্গে বেশি সংখ্যক কুকুরের মৃত্যু হলে সেটা তদন্ত সাপেক্ষ। এব্যাপারে নলহাটি-২ ব্লকের বিডিও হুমায়ুন চৌধুরি বলেন, খবর পেয়ে ব্লকের প্রাণী চিকিৎসক গিয়ে ছিলেন।

তারা জানিয়েছেন, প্রাথমিকভাবে যেটা জানতে পেরেছি, ওই গ্রামে পোল্ট্রি ফার্ম আছে। সেখানে মরা মুরগি খেয়ে কুকুরগুলো কোন ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। কালকে পূর্ণাঙ্গ রিপোর্ট পাব। তারপর বলতে পারব।  

জানা গেছে, গত রবিবার-সোমবার নলহাটি দুই ব্লকের ন'পাড়া গ্রাম পঞ্চায়েতের কুমারসন্ডা গ্রাম সহ হাজিপাড়া, পশ্চিমপাড়ায় রাস্তার ধারে কুকুরদের মরে পরে থাকতে দেখা যায়। গ্রামবাসী মহম্মদ নাজিরুদ্দিন ও নুরুল ইসলামরা জানান, এলাকার রাস্তার কুকুরেরা ঝিমোচ্ছে। পাশাপাশি, মুখ দিয়ে লালা ঝরছে। তারপরে মারা যাচ্ছে।

গ্রামবাসী নুরুল ইসলামের দাবিএই দুদিনে প্রায় ২০ টা পথ কুকুর মারা গিয়েছে। এলাকাসূত্রে জানা গিয়েছে,  মৃত কুকুরদের মাটিতে না পুঁতে রাস্তার ধারে মৃতদেহ ফেলে রাখা হচ্ছে। যা থেকে আরও আতঙ্কিত হয়ে পড়ছে গ্রামবাসীরা। জানা গেছে, ঠিকভাবে গরম না পরলে, ভাইরাসের প্রকোপ বাড়ে। এই রোগের নাম পার্ভো এবং ডিসটেম্পার। চিকিৎসক সৌরভ কুমার জানান, দু বছর পর্যন্ত কুকুরদের এজন্য একটি ইঞ্জেকশন ও তারপরে একটা বুস্টার ডোজ দিতে হয়। বড়দের ক্ষেত্রে একটি ইঞ্জেকশনে কাজ আসে। কুকুর প্রথমে খাওয়া বন্ধ করবে। ঝিমোবে। তারপরে মারা যাবে।

সিউড়ির এক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন সূত্রে জানা গেছে, এবার কুকুরদের ভাইরাসের আক্রমণ দেখা যাচ্ছে । আর তারজন্য রাস্তার কুকুরেরা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা যাচ্ছে। এক্ষেত্রে মহামারী রুখতে মৃত পোষ্য বা রাস্তার কুকুরকে আবশ্যই মাটিতে পুঁতে দেওয়া উচিত বলে চিকিৎসকদের দাবি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only