বৃহস্পতিবার, ২৬ মার্চ, ২০২০

লকডাউনের মাঝেই রবীন্দ্র সরোবরে চলল গুলি, ধৃত ২, উদ্ধার আগ্নেয়াস্ত্র,


পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক: দুই ব্যক্তির বচসাকে কেন্দ্র করে প্রকাশ্য দিবালোকে গুলি চলল দক্ষিণ কলকাতার রবীন্দ্র সরোবর এলাকায়। ডান পায়ের হাঁটুর কাছে গুলি লেগে গুরুতর যখম হন পিন্টু দাস নামে এক যুবক। গুলিবিদ্ধ ব্যক্তিকে এম আর বাঙ্গুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গুলি চালানোর অভিযোগে টিংকু শীল নামে এলাকার এক দুষ্কৃতীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। একই সঙ্গে গ্রেপ্তার করা হয় টিংকুর অপর সহযোগী জয় দাস নামে আর এক জনকে।

ধৃতদের কাছ থেকে উদ্ধার হয়েছে একটি আগ্নেয়াস্ত্র। লকডাউন এর সময় গত কয়েকদিনে অপরাধের ঘটনা অনেকটাই কমে গিয়েছে। অন্তত এ ব্যাপারে কিছুটা স্বস্তি ফিরে ছিল পুলিশের। এদিনের ঘটনায় ফের নতুন করে উদ্বেগ বাড়লো। 

পুলিশ সূত্রে খবর, বৃহস্পতিবার দুপুর ১টা নাগাদ পেশায় গাড়ি চালক বছর ৪৮ এর পিন্টু দাস নিজের নাতিকে নিয়ে পাড়ার মুদির দোকানে যাওয়ার জন্য বেরিয়ে ছিলেন। ফেরার পথে একই পাড়ার বাসিন্দা টিঙ্কুর সঙ্গে দেখা হয়। তার সঙ্গে কথা বলতে দেখা যায় পিন্টু বাবুকে।

এরপর কিছুক্ষণের মধ্যেই বচসায় জড়িয়ে পড়েন দুজন। প্রত্যক্ষদর্শীদের দাবি, তর্কাতর্কি চলাকালীন আচমকা নিজের কাছে থাকা একটি বন্দুক থেকে পরপর দুটি গুলি চালায় টিংকু। প্রথম গুলিটি মিস হয়ে গেলে ফের গুলি চালানো হয়। দ্বিতীয় গুলিটি গিয়ে লাগে পিন্টু বাবুর ডান পায়ের হাঁটুর কাছে। এলাকার বাসিন্দারা তাকে উদ্ধার করে এম আর বাঙ্গুর হাসপাতালে নিয়ে যান। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখা দিলে তাকে এসএসকেএম হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।
হাসপাতালে গিয়ে গুলিবিদ্ধ ব্যক্তির বয়ান রেকর্ড করেন তদন্তকারী আধিকারিকরা। লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্ত দুজনকে গ্রেপ্তার করে রবীন্দ্র সরোবর থানার পুলিশ। 

পুলিশ সূত্রে খবর, ধৃতদের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩০৭/ ৩৭ ধারায় এবং অস্ত্র আইনে মামলা রুজু করেছে রবীন্দ্রসরোবর থানার পুলিশ। অভিযুক্ত যুবকদের সাথে আহত ব্যাক্তির পুরনো কোনো শত্রুতা ছিল কিনা, ধৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করে তা জানার চেষ্টা করছেন তদন্তকারী আধিকারিকরা

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only