বুধবার, ২০ মে, ২০২০

আমফানের কারণে বৃহস্পতিবার বিকেল পর্যন্ত বন্ধ বিমান চলাচল


পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক: করোনা ভাইরাসের কারণে এমনিতেই নিয়মিত কলকাতা বিমানবন্দরের যাত্রীবাহী বিমান উঠা-নামা বন্ধ রয়েছে। শুধুমাত্র বিশেষ বিমান চলছিল এই মুহূর্তে। বিধ্বংসী ঘূর্ণিঝড় আমফানের কারণে বিমানবন্দর বৃহস্পতিবার বিকাল পাঁচটা পর্যন্ত বিমান ওঠানামা বন্ধ রাখা হল। শুধু তাই নয়, সতর্কতামূলক পদক্ষেপ হিসেবে কলকাতা বিমানবন্দর থেকে সরিয়ে ফেলা হল ১০টি ছোট বিমান।

বিমানবন্দর সূত্রে জানা গিয়েছে, আপাতত কলকাতা বিমানবন্দরে থাকা ছোট বিমানগুলি রাঁচি, বারাণসী, গুয়াহাটি– বিভিন্ন বিমানবন্দরে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এয়ার ইন্ডিয়ার তিনটি এটিআর বিমান, ইন্ডিগোর চারটি এবং স্পাইস জেটের তিনটি বিমানকেও ঝড়ের হাত থেকে বাঁচতে উড়িয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে অন্যত্র।

১৯৯৯ সালের পর এত বড় ঘূর্ণিঝড় রাজ্যে আসেনি।বুলবুল বা ফণির সময়ে কিন্তু ঝড়ের প্রভাব কলকাতায় দেখা যায়নি। তবে এক্ষেত্রে ঝড় কলকাতার গা ঘেসে যাবে। কলকাতাতেও ঝড়ের গতি ১৩০ কিমি পার আওয়ার হওয়ার কথা। তাই বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের ঝড়ের আশঙ্কায় বিমানগুলিকে অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। 

বিমান বন্দর কর্তৃপক্ষ মনে করছে, প্রবল হাওয়ায় ছোট বিমানগুলি টার্মিনাল বা পাশে দাঁড়িয়ে থাকা বড় বিমানে ধাক্কা মারতে পারে। তাই বড় ক্ষতি এড়াতেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে বড় তথা বোয়িং বিমানগুলি থাকছে কলকাতাতেই।বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের সূত্রে জানা গেছে, শুধু কলকাতা নয়, ভুবনেশ্বর বিমানবন্দর থেকেও বিভিন্ন সংস্থার ১৬টি বিমান সরিয়ে নিয়ে রাখা হয়েছে বিশাখাপত্তনম এবং পাটনায়।

উল্লেখ্য,যাত্রীবাহী বিমান বন্ধ থাকলেও প্রতিদিন প্রায় ১০টি করে পণ্যবাহী বিমান ওঠানামা করছে কলকাতা বিমানবন্দরে। তবে বুধবার ও বৃহস্পতিবার তাতে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। আমফান সতর্কতায় এই দু’দিন কোনও কার্গো বিমান ওঠা নামা করবে না বলে জানিয়েছে কলকাতা বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only