শুক্রবার, ১৫ মে, ২০২০

রাজ্য থেকে যাওয়ায় পরিযায়ী শ্রমিকদের বিস্তারিত তথ্য চেয়ে রাজ্যগুলিকে চিঠি লিখলেন মুখ্যসচিব


পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক:  রাজ্যের পরিযায়ী শ্রমিকদের সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য চেয়ে উত্তরাখণ্ড সহ বিভিন্ন রাজ্য সরকারকে চিঠি লিখলেন রাজ্যের মুখ্য সচিব রাজীব সিনহা। এই মুহূর্তে গোটা দেশ থেকে পরিযায়ী শ্রমিকদের আনাগোনা শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ট্যুইট বার্তায় জানিয়েছেন, রাজ্যের পরিযায়ী শ্রমিকদের মোট ১০৫টি ট্রেনে করে রাজ্যে ফিরিয়ে আনা হবে। সেই প্রক্রিয়ায় এবার শুরু হয়ে গেল। 

ওই ১০৫ টি ট্রেনের মধ্যে প্রথম ট্রেনটি আসার কথা উত্তরাখণ্ডের হরিদ্বার থেকে।উত্তরাখন্ড থেকে পরিযায়ী শ্রমিকদের নিয়ে একটি ট্রেন আসার কথা রয়েছে আগামী ১৭ মে। এদিন তাতে কতজন পরিযায়ী শ্রমিক আসছেন, তাদের নাম, শারীরিক অবস্থা এবং বাড়ির ঠিকানা মোবাইল নম্বরসহ জানতে চেয়ে চিঠি দিলেন তিনি। আসলে, এই মুহূর্তে একেক রাজ্যে করোনা পরিস্থিতি একেক রকম। রাজ্য সরকার পরিযায়ী শ্রমিকদের নিয়ে নতুন করে কোনও ঝুঁকি নিতে চায় না। তাই পরিযায়ী শ্রমিকরা রাজ্যে আসার আগে তাদের সম্পর্কে সমস্ত তথ্য নথিভুক্ত করে পরবর্তী পদক্ষেপ ঠিক করতে চাইছে রাজ্য।পরিযায়ী শ্রমিকদের নিয়ে আসা ট্রেনগুলি কোন কোন স্টেশনে থামবে এই চিঠিতে সে বিষয়ে তথ্য জানতে চাওয়া হয়েছে।

রাজ্য সরকারের তরফ থেকে জানা গিয়েছে, যেখানে যেখানে পরিযায়ী শ্রমিকরা নামবেন, সেখানেই পুলিশ, রাজ্যের স্বাস্থ্যকর্মী এবং গাড়ির ব্যবস্থা রাখা হবে। স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর প্রত্যেক পরিযায়ী শ্রমিককে তার বাড়িতে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। আর স্বাস্থ্য পরীক্ষার সময় যদি স্বাস্থ্যকর্মীদের মনে হয় কোন শ্রমিক অসুস্থ সে ক্ষেত্রে একবারে স্টেশন থেকেই তাঁর চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হবে বলে রাজ্য সরকারের তরফ থেকে জানানো হয়েছে। 

এছাড়া ট্রেন থেকে নামার পর পরিযায়ী শ্রমিকরা তাদের বাড়িতে যাওয়ার জন্য পর্যাপ্ত যানবাহন পাচ্ছিল না বলে একটা অভিযোগ উঠেছিল। রাজ্য সরকার চায় না, পরিযায়ী শ্রমিকরা রাজ্যে ফিরলে তাদের জন্য নতুন করে আরো সংক্রমণ ছড়াক। তাই ফোন নম্বর নিয়ে তার সঙ্গে আগেই যোগাযোগ করা হবে, এরপর তাঁকে সঠিক গন্তব্যে পৌঁছে দেওয়ার জন্য থাকবে গাড়িও। আগামী ১৪ এই শ্রমিকদের গতিবিধির ওপর নজরদারি ও চালাবে পুলিশ।এদের থেকে যাতে নতুন করে কোনও সংক্রমণ না ছড়ায় সেদিকেও নজর রাখা হবে।

এদিন মুখ্য সচিব উত্তরাখান্ড ছাড়াও উত্তরপ্রদেশ, মহারাষ্ট্র সরকারকেও চিঠি দিয়েছেন তিনি। লকডাউন প্রটোকল বা কোভিড-১৯ সচেতনতা যাতে মানা যায় সেজন্যই উদ্যোগ বলে নবান্ন সূত্রে জানা গিয়েছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only