সোমবার, ১৮ মে, ২০২০

কত ধানে কত চাল বুঝছে ইসরাইল, নেতানিয়াহুর স্বপ্নভঙ্গে জুটি বাঁধছে ফিলিস্তিন-জর্ডন


পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক: জর্ডনের রাজা দ্বিতীয় আবদুল্লাহর হুঁশিয়ারি এসেছিল আগেই। সেইসময় তিনি স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছিলেন, ওয়েস্টব্যাঙ্ক ও জর্ডন উপত্যকায় ভূমিদখল করে বসতি সম্প্রসারণের ইসরাইলি পরিকল্পনাকে মান্যতা দেওয়া হবে না। তাই এবার ইসরাইলের বসতি সম্প্রসারণের দিবা স্বপ্নকে ভাঙতে হাত মেলাতে চলেছে ফিলিস্তিন ও জর্ডন। 

দুই দেশের সরকারি আধিকারিক ইসরাইলের সঙ্গে যাবতীয় চুক্তি ভেঙে তেল আবিব বিরোধী কঠোর পদক্ষেপ নেওয়ার কথা ভাবছেন।  ফিলিস্তিন বিদেশমন্ত্রকের শীর্ষ আধিকারিক আহমেদ ডিক জানিয়েছেন, ফিলিস্তিন ভূমি চুরি করার ইসরাইলি পরিকল্পনার জবাবে কী সিদ্ধান্ত নেওয়া যেতে পারে সে বিষয়ে লাগাতার কথা চলছে দু’দেশের মধ্যে। এই মুহূর্তে জর্ডন-ফিলিস্তিন ‘শীর্ষ পর্যায়ের’ আলোচনা ও সহযোগিতা চলছে বলেও জানানো হয়েছে। 

ওই আধিকারিক জানাচ্ছেন, 'আমরা একই লক্ষ্য নিয়ে চলেছি, ইসরাইলি পদক্ষেপ রুখতে ও আরব বিশ্বের সংহতি রক্ষায় জর্ডন-ফিলিস্তিন একই ভাবে কাজ করে চলেছে।’ জার্মান ম্যাগাজিন ডির স্পিজেলকে সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকার দিয়েছেন জর্ডনের দ্বিতীয় রাজা আবদুল্লাহ। রাজার ইসরাইল বিরোধিতার প্রসঙ্গ টেনে এনে ফিলিস্তিনের বিদেশমন্ত্রকের আধিকারিক জানান, ’আমরা রাজার সিদ্ধান্তে গর্বিত। এটা দখদারদের স্পষ্ট বার্তাই দিয়েছে।’ 

ফিলিস্তিনের জাতীয় পরিষদের সদস্য নাজিব কাদুমি অবশ্য বলছেন, সব পথই খোলা রয়েছে। ইসরাইল যদি তাদের অবস্থানে অটল থাকে তাহলে, ১৯৮৪ সালে স্বাক্ষরিত ওয়াদি আরব চুক্তি ও ১৯৯৩ সালের পিএলও-ইসরাইল চুক্তি ভেস্তে দেওয়া হবে। ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস সাম্প্রতিক এক বক্তব্যে ইসরাইলকে সতর্ক করে জানিয়েছেন, ফিলিস্তিনি ভূমিকে বসতি সম্প্রসারিত হলে অসলো চুক্তি টিকিয়ে রাখার কোনও যৌক্তিকতা আর থাকবে না। ফিলিস্তিন সরকারও যাবতীয় প্রতিশ্রুতি পালনে বদ্ধপরিকরতার কথা ভুলে যাবে। জর্ডন-ফিলিস্তিন যৌথ পরিকল্পনার ব্যাপারে উৎসাহী দেখাচ্ছে আব্বাসকেও। 

এদিকে জর্ডনের সাংসদ ইয়েহিয়া সুদ বলছেন, ইসরাইলি পদক্ষেপকে হুমকি হিসাবেই দেখছেন।  জর্ডনের সাধারণ মানুষ যে রাজা দ্বিতীয় আবদুল্লাহর পাশে রয়েছে সেকথা জানিয়ে এই আরও সাংসদ বলেন, ’ অন্ধকারের আশ্রয় ছেড়ে শান্তির পক্ষে অবস্থান নেওয়ার এটাই সেরা সুযোগ আমেরিকার কাছে। জায়নবাদীদের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক দুনিয়া একজোট হোক। আরব ও ইসলামি বিশ্ব ন্যায় ও শান্তির জন্য সবই করবে।’ 

জর্ডনের সাংসদ সুদ আরও জানান, এর আগে জর্ডনের সংসদে ইসরাইলের সঙ্গে স্বাক্ষরিত ওয়াদি-আরব চুক্তি ভেঙে দেওয়ার প্রস্তাব উঠেছিল। ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন অধ্যাপক ও বিশ্লেষক ফিলিস্তিনি বংশোদ্ভূত জর্ডানিজ লামিক আন্দোনি বলছেন, ইসরাইলি ভূমি দখলের পরিকল্পনার বাস্তবায়ন হলে তা দুই দেশের নাগরিককেই আঘাত করবে।তিনি আরও বলেন 'আমার মনে হয় কোনও বড. সিদ্ধান্তের আগে দু’পক্ষেরই প্রয়োজন সহযোগিতার মাধ্যমে সব ঠিক করা।’ ফিলিস্তিনি আইনজীবী জিয়াদ আবু জায়াদ বলছেন, ’এখনই কোনও সিদ্ধান্ত বা পদক্ষেপ নেওয়া ঠিক হবে না। আগে দেখতে হবে ইসরাইল তাদের সংসদে বা নেসেটে আইন করার জন্য কী প্রস্তাব তুলছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only