শুক্রবার, ১৫ মে, ২০২০

পরিযায়ী শ্রমিকদের হাঁটা বন্ধ করা কিংবা তাদের উপর নজরদারি করা সম্ভব নয়: সুপ্রিম কোর্ট



পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক: করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে জারি হওয়া লকডাউনে যে সব হাজার হাজার পরিযায়ী শ্রমিক হেঁটে বাড়ি ফিরছে তাদের  খাওয়া দাওয়া সহ বিনা পয়সা ঘরে ফেরানোর জন্য যানবাহনের ব্যবস্থা করার দাবি জানিয়ে করা এক আবেদন শুক্রবার খারিজ করে দিল সুপ্রিম কোর্ট 

আবেদনকারী তার আর্জিতে সুপ্রিম কোর্টে জানিয়েছিল, কেন্দ্রীয় সরকার যেন জেলা শাসকদেরকে এই মর্মে নির্দেশ দেয় যে, তারা রাস্তায় হেঁটে চলা সব পরিযায়ী শ্রমিকদেরকে চিহ্নিত করে তাদের বিনা পয়সার গাড়িতে বাড়িতে পৌঁছে দেওয়া সুনিশ্চিত করার আগে তাদের জন্য যেন খাওয়া দাওয়া, আশ্রয় শিবির নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয় তার পরিপ্রেক্ষিতে সুপ্রিমে কোর্ট জানিয়ে দেয়, তাদের পক্ষে দেশজুড়ে হেঁটে চলা পরিযায়ী শ্রমিকদের উপর নজরদারি করা অসম্ভব কে হেঁটে যাচ্ছে আর কে হেঁটে যাচ্ছে না তার উপর নজরদারি চালানো কোনওভাবেই সম্ভব নয় বিভিন্ন রাজ্য সরকারের উচিত ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া

নোটবন্দির মতো হঠাৎ দেশজুড়ে লকডাউন ঘোষণার পর হাজার হাজার পরিযায়ী শ্রমিক আটকে রয়েছে বিভিন্ন রাজ্যে লকডাউনের জেরে পরিবহণ ব্যবস্থা বন্ধ থাকায় ওই সব পরিযায়ী শ্রমিকরা আতান্তরে পড়ে দীর্ঘদিন ধরে লকডাউনের ফলে একদিকে অর্থ ফুরিয়ে আসে অন্যদিকে খাদ্যসঙ্কট দেখা দেয় সেই মানবেতর অবস্থা থেকে রেহাই পেতে হাজার হাজার শ্রমিক যানবাহনের তোয়াক্কা না করে পায়ে হেঁটে বাড়ি ফিরতে রওনা দেয়   কিলোমিটার পায়ে হেঁটে বাড়ি ফিরতে গিয়ে বহু পরিযায়ী শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে রাস্তায় আর যারা হেঁটে এখনও ফিরছে তাদের রাস্তায় খাওয়া দাওয়ার ব্যবস্তা করা তো দূরের কথা কোনও নিরাপত্তা নেই মহারাষ্ট্রের আওরাঙ্গাবাদে রেললাইনে শুয়ে থাকা ক্লান্ত শ্রমিকদের বেঘারে মৃত্যু তাদের নিরাপত্তাহীনতাকেই আঙুল তুলে দেখিযে দিয়েছেএবার সব শ্রমিকদের খাওয়া দাওয়া সহ তাদের ঘরে ফেরানোর ব্যবস্তা করার দাবি খারিজ করে দিল সুপ্রিম কোর্ট

আইনজীবী আলাখ অলোক শ্রীবাস্তবের করা আর্জিতে সুপ্রিম কোর্টে বলা হয়েছিল, সম্প্রতি মধ্যপ্রদেশে উত্তরপ্রদেশের বহু পরিযায়ী শ্রমিক হাইওয়েতে দুর্ঘনার শিকার হয়েছে এছাড়া বলা হয়, মংধ্যপ্রদেশে থেকে শ্রমিকরা যখন ফিরছিল তখন ক্লান্ত হয়ে রেললাইনে শুয়ে পড়ে আওরঙ্গাবাদের কাছে একটি মালবাহী ট্রেন ঘুমন্ত ১৬ জন পরিযায়ী শ্রমিককে পিষে মারে তাই শীর্ষ কোর্ট সরকারকে নির্দেশ দিক হেঁটে বাড়ি ফেরা শ্রমিকদের খুঁজে বের করেত এবং তাদের জন্য খাবার আশ্রয় শিবিরের ব্যবস্থা করতে

এই আর্জির পরিপ্রেক্ষিতে বিচারপতি এল নাগেশ্বর নাও, বিচারপতি এস কে কাউল বিচারপতি বি আর গবাইয়ের গঠিত বেঞ্চ বলে, কীভাবে আমরা এসব বন্ধ করব রাজ্যগুলির উচিত বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া আর্জি শুনতে অস্বীকার করে তিন সদষ্যের গঠিত বেঞ্চ জানায়, কে হাঁটছে, আর কে হাঁটছে না  তা নজরদারি করা কোর্টের পক্ষে সম্ভব নয়  কেউ যদি রেললাইনের উপর শুয়ে তাকে তাহলে কী করে তা বন্ধ করা যাবে সে প্রশ্নও তোলা হয়
বিচারপতি এল নাগেশ্বর রাওয়ের নেতৃত্বে গঠিত তিন সদস্যের বেঞ্চ সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতার কাছে জানতে চায়, রাস্তায় পরিযায়ী শ্রমিকদের হেঁটে চলা বিরত করতে কোনও উপায় আছে কিনা 

এর জবাবে মেহতা বলেন, সরকার পরিযায়ী শ্রমিকদের বাড়ি ফেরাতে আন্তঃরাজ্য পরিবহণের ব্যবস্থা করেছে কিন্তু যদি তার জন্য অপেক্ষা না করে তারা হাঁটতে শুরু করে তাহলে তাদের কিছুকরার নেইতবে, সুপ্রিম কোর্ট মামলার আবেদনকারীর উদ্দেশ্যে বলেছে, মনে হচ্ছে পেপার কার্টিং দেখে এই আর্জি তাই কোর্ট আর্জি শুনবে না বলে মামলা খারিজ করে দেয়


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only