বুধবার, ২০ মে, ২০২০

ছাত্র নেতা আসিফ ইকবাল তানহার গ্রেপ্তারে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া সমন্বয় কমিটির

























পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক,নয়াদিল্লি :
জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া সমন্বয় কমিটি  ছাত্র নেতা  আসিফ ইকবাল তানহাকে গ্রেপ্তারে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে।তারা বলেছে, সিএএবিরোধী নেতাকর্মীদের দিল্লি পুলিশ জাদুকরী শিকারে পরিণত করেছে।এই ‘উদ্দেশ্যমূলক গ্রেফতারের’ নিন্দা জানিয়ে  সিএএ ও এনআরসি বিরোধী আন্দোলনের সঙ্গে জড়িত সকল রাজনৈতিক বন্দীদের মুক্তি দাবি করেছে জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া সমন্বয় কমিটি  

এক সংবাদ বিঞ্জপ্তিতে  জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া সমন্বয় কমিটি  আরও বলেছে যে, “আঘাত ও হতাশার মধ্যে আমরা শিখছি।  আমাদের আরও একজন সদস্যকে দিল্লি পুলিশের বিশেষ সেল  গ্রেপ্তার করেছে তারা আসিফ ইকবাল তানহাকে সোমবার রাত আটটার দিকে দিল্লির বাসভবন থেকে গ্রেপ্তার করে।

তানহা, যিনি ঝাড়খন্ডের এবং ফারসি ভাষার শেষ বর্ষের স্নাতক শিক্ষার্থী, জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া সমন্বয় কমিটির  সোচ্চার নেতা এবং পুরো ভারতজুড়ে সিএএ বিরোধী প্রতিবাদের অন্যতম প্রধান মুখ ছিলেন। পুলিশ তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য প্রথমে ফোন করলেও পরে তাকে ম্যাজিস্ট্রেটের সামনে হাজির করে বিচারকের নির্দেশে  তিহার জেলে পাঠানো হয়।

উল্লেখ্য যে, জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়ার এই ছাত্রকে (২৯৮ / ২০১৯) ধারায় এফআইআর-করে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া সমন্বয় কমিটি  জানিয়েছে, দিল্লি পুলিশ তাদের কুখ্যাত ৫৯/২০২০ এর পরে আর একটি এফআইআর ব্যবহার করল।

এর আগে জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া সমন্বয় কমিটির  তিন নেতা মীরাণ হায়দার, সাফুরা জার্গার এবং শিফা-উর রহমানকে এফআইআর ৫৯/২০২০ ধারায় মামলা করা হয়েছে এবং জেলে পাঠানো হয়েছে।

সংবাদ বিঞ্জপ্তিতে আরও বলা হয়েছে যে "উত্তর-পূর্ব দিল্লির সহিংসতা অনুসন্ধান এবং প্রকৃত অপরাধীদের গ্রেপ্তারের পরিবর্তে দিল্লি পুলিশ নির্লজ্জভাবে জামিয়া ছাত্রনেতাদের শিকার তথা গ্রেফতার করছে।উত্তর-পূর্ব দিল্লির সহিংসতার সমস্ত ষড়যন্ত্রকারী দুষ্কৃতকারীরা যখন মুক্তভাবে ঘোরাফেরা করছে, তখন জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া সমন্বয় কমিটির  নেতাদের জেলে পাঠানো হচ্ছে এবং কঠোর আইনএর ধারা দিয়ে তাদের জীবন বিপর্যস্ত করে দেওয়া হচ্ছে।”
জামিয়া সমন্বয় কমিটি আরও বলেছে যে,"আমরা এই গণতান্ত্রিক শক্তিকে দমিয়ে দেওয়ার নামে অবৈধ প্রতিহিংসাপরায়ণ পুলিশি কর্মকাণ্ড বন্ধ করার জন্য প্রতিবাদ তীব্র করার এবং উত্তর-পূর্ব দিল্লির সহিংসতার পিছনে প্রকৃত অপরাধীদের গ্রেপ্তারের দাবি জানাচ্ছি।আমরা আবারও বলেছি যে, আমরা দিল্লি পুলিশের ভয়ে পিছিয়ে না গিয়ে  ফ্যাসিবাদী সরকার এবং দিল্লিতে  গণহত্যা ও সিএএ , এনআরসি  এবং এনপিআরের মতো আইন কার্যকর করার বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাব।"

জামিয়া সমন্বয় কমিটি অবিলম্বে সকল রাজনৈতিক বন্দীদের মুক্তি দেওয়ার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।সেই সঙ্গে সিএএ / এনআরসি আন্দোলনের সাথে সম্পর্কিত গ্রেপ্তার হওয়া সমস্ত রাজনৈতিক বন্দীদের মুক্তিও দাবি করেছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only