শনিবার, ১৬ মে, ২০২০

বেসরকারি বাসের বর্ধিত ভাড়া মানবে না রাজ্য সরকার স্পষ্ট জানালেন শুভেন্দু


পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক: বর্ধিত হারে বেসরকারি বাসের ভাড়া মানবে না রাজ্য সরকার।শনিবার নবান্নে সাংবাদিক সম্মেলন করে একথা স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দিলেন রাজ্যের পরিবহনমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। 

করোনা আবহে এমনিতেই রাজ্যের সাধারণ মানুষ অসুবিধার মধ্যে রয়েছেন, বাস ভাড়ার নামে তাদের ঘাড়ে বাড়তি বোঝা চাপুক, চাইছে না রাজ্য সরকার।আর সে কারণেই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশ, এই সময় কোনও বেশি অর্থ নিতে পারবে না বেসরকারি বাস সংগঠনগুলি। 

এদিন শুভেন্দু অধিকারী আরও জানিয়ে দিয়েছেন,রাজ্যের এই সিদ্ধান্তের জন্য যদি বেসরকারি বাস মালিকরা এই মুহূর্তে রাস্তায় না নামায় তার জন্য প্রস্তুত রয়েছে পরিবহন দফতর। প্রয়োজনে বনধের দিন যেভাবে বাড়তি বাস চালিয়ে মানুষকে গন্তব্যে পৌঁছানো নিশ্চিত করা হয়, একইভাবে এখনও সরকারি বাস চালানো হবে। তবে বাড়তি টাকা নেওয়ায় মঞ্জুরি দেবেনা রাজ্য সরকার। 

এদিন পরিবহনমন্ত্রী বাস মালিকদের আশ্বস্ত করেছেন, বাস ভাড়া না বাড়িয়ে বেসরকারি বাস গুলি যদি পথে নামে, তাদের সবরকম সাহায্য করবে রাজ্য সরকার।

এদিন নবান্নের সাংবাদিক সম্মেলন থেকে তিনি কেন্দ্রীয় নীতিরও সমালোচনা করেছেন। শুভেন্দুবাবু স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, এই মুহূর্তে আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম যথেষ্টই কম। কিন্তু কেন্দ্রীয় সরকার সেজে নামে করের বোঝা বাড়িয়েছে। করোনা পরিস্থিতিতে কোনও কোনও সরকার করোনা সেজও মানুষের উপর চাপিয়ে দিয়েছে। তিনি বলেন, এই সরকার মানবিক। অন্য রাজ্যের মতো তেমন কোনও পথে হাঁটিনি আমরা। আর সে কারণেই সরকার চাইছে বেসরকারি বাস মালিকেরা রাজ্যকে সাহায্য করুক।

এদিন বাসের পাশাপাশি এক কামরা ট্রাম ও ফেরি সার্ভিস ধাপে ধাপে রাজ্যে চালু হবে বলে জানিয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী। একই সঙ্গে হলুদ ও নীল সাদা ট্যাক্সি পরিষেবা এই পরিস্থিতিতে উপলব্ধ হবে বলে তিনি জানান। শুভেন্দু অধিকারী এদিন অ্যাপ নির্ভর ট্যাক্সি (ওলা- উবেরকে) শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন আগামীতে ধাপে ধাপে ১০০০ অ্যাপ নির্ভর ট্যাক্সি নামানো হবে। 

তিনি আরও জানান,এই মুহূর্তে কনটেইনমেন্ট জোনে কোনও পরিবহন পরিষেবা দেওয়া সম্ভব নয়। কনটেইনমেন্ট জোনের বাইরেও সকাল ৭ টা থেকে সন্ধ্যা ৭ টা পর্যন্ত এই পরিষেবা মিলবে।

এদিকে এদিন বাস মালিক সংগঠনের তরফ থেকে রাজ্য সরকারের এই সিদ্ধান্তের কড়া সমালোচনা করা হয়েছে। তাদের স্পষ্ট বক্তব্য আয় ও ব্যয়ের সাম্যতা না আসলে তাদের পক্ষেও বাস চালানো সম্ভব নয়। এদিন জয়েন্ট কাউন্সিলর অফ বাস সিন্ডিকেটের জেনারেল সেক্রেটারি তপন বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন,আমরা আশা করেছিলাম এই অবস্থায় রাজ্য সরকার সংঘাত নয়, একটা সমঝোতার রাস্তায় হাঁটবেন। সরকার চাইলে এই সময় রাজ্যের হাতে থাকা সেজে ছাড় দিতে পারত। 

এমনকি কেন্দ্রকে ডিজেলের দাম কমানোর জন্য অনুরোধ করতে পারত রাজ্য সরকার। কিন্তু তা না করে, শুধু বলা হল বর্ধিত হারে বাস ভাড়া নেওয়া যাবে না। এভাবে চলতে থাকলে আমাদের পক্ষেও এই পরিস্থিতিতে রাস্তায় বাস নামানো সম্ভব নয়।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only