সোমবার, ১৮ মে, ২০২০

লকডাউনে ঘরবন্দি মানুষজন, ৬১ শতাংশ ভুগছেন মানসিক সমস্যায়


পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক  : লকডাউনের ফলে ঘরবন্দি মানুষজন৷ সামাজিক মেলামেশা, আচার অনুষ্ঠান বন্ধ৷ জীবিকার প্রয়োজনে যে কাজটুকু সাধারণ মানুষ করে, তাও অনেকেরই বন্ধ৷ বিভিন্ন সেক্টরে চলছে ওয়ার্ক ফ্রম হোম, ঘরে থেকেই কাজ৷ তবে এই ঘরবন্দি হয়ে থাকার ফলে সবচেয়ে বড় ক্ষতি হচ্ছে মানুষের মনের৷ একটি সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছে, দেশের ৬১ শতাংশ মানুষ মানসিক সমস্যায় ভুগছেন৷ ঘরে বসে থাকা যেমন এর কারণ,  তেমনি অনিশ্চিত অর্থনৈতিক ভবিষ্যত ও লকডাউনে অর্থসংকটও এর বড় কারণ বলে চিহ্নিত করছেন মনরোগ বিশেষজ্ঞরা৷
মাভেরিকস ইন্ডিয়ার করা এই সমীক্ষায় ( রিবুটিং ২০২০: এ স্টোরি অব কোভিড-১৯ অ্যান্ড শিফটিং পারসেপশন) বলা হয়েছে, জেন জেড ও মিলেনিয়ালসরা লকডাউনের ফলে বেশি মানসিক টানাপোড়েনের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছেন৷ ২৭ শতাংশ জেনারেশন জেড ও ১৯ শতাংশ মিলেনিয়ালস এ ব্যাপারে জানিয়েছে যে, ঘরবন্দি হয়ে থাকার ফলে তারা মানসিক রোগে ভুগছে৷ জেনারেশন এক্স সবচেয়ে কম ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে এর ফলে৷ তাদের একটা মানসিক পরিপূর্ণতা চলে এসেছে এবং এই সংকটকে বাগে আনার জন্য মানসিক জোর প্রদর্শন করতে পারছে৷ মহিলারা লকডাউনের ফলে পুরুষদের থেকে বেশি সংগ্রাম করছেন৷ কারণ তাদের কাজ বেড়ে গেছে৷ বাড়িতে পুরুষরা থাকায় এটা হচ্ছে৷ এপ্রিল-মে মাসে এই অনলাইন সার্ভেটি করা হয় ৬০০ জন মানুষের মধ্যে৷
এই সমীক্ষায় আরও উঠে এসেছে যে ৪৬ শতাংশ মানুষের বিশ্বাস, কোভিড-১৯ উত্তর বিশ্বে ওয়ার্ক ফ্রম হোম ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়বে সব সেক্টরে৷ অনেকেই দীর্ঘ দিন যাবত ঘরে থেকে কাজ করছেন৷ কমছে বেতন৷ কোম্পানি কতদিন তাদের এই কাজে রাখবে, তা নিয়েও দুশ্চিন্তা রয়েছে৷  ফলে তাদের উপরেও মানসিক চাপ পড়ছে৷

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only