বৃহস্পতিবার, ১৪ মে, ২০২০

বনগাঁ পুরসভা এলাকার সেই মহিলা করোনা মুক্ত, শহর জুড়ে স্বস্তি

কন্টেইনমেন্ট জোনে বনগাঁ শহরের মতিগঞ্জ চৌমাথা এভাবেই শুনশান।

এম এ হাকিম, বনগাঁ : উত্তর ২৪ পরগণার বনগাঁ পুর এলাকার করোনা আক্রান্ত মহিলা করোনা মুক্ত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার ওই খবর প্রকাশ্যে আসতেই শহর জুড়ে স্বস্তির হাওয়া বইছে। বনগাঁ শহরের হাসপাতাল কালীবাড়ি সংলগ্ন এলাকার বাসিন্দা ওই মহিলা সম্প্রতি করোনা আক্রান্ত হওয়ায় তিনি কলকাতার একটি হাসপাতালে ভর্তি আছেন। শিগগিরি তিনি বাড়ি ফিরবেন। চিকিৎসা শেষে তাঁর করোনা পরীক্ষার ফল নেগেটিভ এসেছে বলে জানা গিয়েছে।
এদিন পুরসভার স্বাস্থ্য বিভাগের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে চেয়ারম্যান শঙ্কর আঢ্য তাঁর সুস্থতার খবর জানাতেই বিভিন্ন মহলের নাগরিকদের পক্ষ থেকে সন্তোষ প্রকাশ করা হয়।
এপ্রসঙ্গে আজ সন্ধ্যায় বনগাঁ পুরসভার চেয়ারম্যান শঙ্কর আঢ্য জানান, ‘উনি করোনা মুক্ত হয়েছেন। এটা বনগাঁবাসীর জন্য খুব স্বস্তি ও খুশির বিষয়। উনি সুস্থ জীবনযাপন করুন এটাই চাই। শহরের বাসিন্দাদের অবশ্য এখনও সতর্কতা অবলম্বন করে চলতে হবে। যেভাবে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে মানুষজন চলছেন, সেভাবেই আপাতত চলতে হবে। সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টা ও সহযোগিতার মধ্য দিয়ে আমরা করোনার বিরুদ্ধে লড়ছি, সেই লড়াই অব্যাহত থাকবে।’
প্রসঙ্গত, বনগাঁ পুর এলাকার ওই ভদ্রমহিলা আক্রান্ত হওয়ার জেরে গত ১০ মে বিকেল থেকে বনগাঁ শহরকে ২১ দিনের জন্য কন্টেইনমেন্ট জোনে পরিণত করা হয়। এপ্রসঙ্গে বনগাঁর মহকুমা শাসক ড. কাকলি মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘বনগাঁয় বড় রাস্তাগুলোতে প্রচুর মানুষজন অহেতুক ঘুরে বেড়াচ্ছিল। বনগাঁ পুর এলাকার এক মহিলা নাগরিক আক্রান্ত হওয়ায় সতর্কতামূলক পদক্ষেপ হিসেবে জনগণের ঘোরাঘুরি বন্ধ করার প্রয়োজন ছিল। যেহেতু বনগাঁ শহরে বহু দূরদূরান্তের মানুষজনের আনাগোনা, সেজন্য এই এলাকায় প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা না গ্রহণ করলে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা থেকেই কন্টেইনমেন্ট জোন (নিয়ন্ত্রিত এলাকা) করা হয়।’ পরিস্থিতি অনুযায়ী স্বাস্থ্য বিভাগের বিধি মেনে পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে বলেও মহকুমা শাসক ড. কাকলি মুখোপাধ্যায় জানিয়েছেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only