সোমবার, ১৮ মে, ২০২০

বিমান-মেট্রো পরিষেবা বন্ধ, জারি নৈশ কার্ফু, ৩১ মে পর্যন্ত খাঁচাবন্দি দেশ


পুবের কলম প্রতিবেদক: প্রত্যাশামতোই করোনাভাইরাস মোকাবিলায় দেশে চতুর্থ দফার লকডাউন ঘোষণা করল কেন্দ্র। রবিবার সন্ধ্যায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের পক্ষ থেকে রাজ্যগুলিকে পাঠানো নির্দেশিকায় জানিয়েছে, চতুর্থ দফায় দেশজুড়ে দুই সপ্তাহের জন্য লকডাউন জারি থাকছে। অর্থাৎ আগামী ৩১ মে পর্যন্ত চলবে লকডাউন। ওইদিন পর্যন্ত খাঁচাবন্দি থাকতে হবে আমজনতাকে।
তবে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের পক্ষ থেকে জারি করা নির্দেশিকায় দেশে চতুর্থ দফার লকডাউনে বেশ কিছু ক্ষেত্রে ছাড় দেওয়া হলেও বিমান, মেট্রো রেল পরিষেবা বন্ধ থাকবে বলে জানানো হয়েছে। সেই সঙ্গে সাধারণ মানুষের বেপরোয়া চলাচলের উপরে রাশ টানার জন্য সন্ধ্যা সাতটা থেকে সকাল সাতটা পর্যন্ত নৈশ কার্ফু জারির নির্দেশ দেওয়া হয়েছে রাজ্যগুলিকে। ওই সময়ে বাড়ির বাইরে বের হওয়া যাবে না। অপ্রয়োজনে বাড়ির বাইরে বের হলে কঠোর শাস্তির মুখে পড়তে হবে। রাত ৯ নাগাদ ক্যাবিনেট সচিব রাজীব গৌবা সব রাজ্যের মুখ্য সচিবদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে চতুর্থ দফার লকডাউনের গাইডলাইন নিয়ে বিশদে আলোচনাও করেছেন।
প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের বেলাগাম সংক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে গত ২৪ মার্চ দেশ জুড়ে প্রথম লকডাউন জারি করা হয়েছিল। তার পরে আরও দুই দফায় লকডাউন বাড়ানো হয়েছিল। রবিবারই ছিল তৃতীয় দফার লকডাউনের শেষ দিন। যদিও দেশবাসীকে খাঁচাবন্দি করেও পরিস্থিতি সামাল দেওয়া যায়নি। বরং সময় যত গড়াচ্ছে ততই ভয়াবহ হয়ে উঠছে করোনা পরিস্থিতি। আক্রান্তের সংখ্যায় ইতিমধ্যেই করোনার আঁতুরঘর চিনকে টপকে গিয়েছে দেশ। করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯১ হাজার ৪৪৯ জনে। প্রাণ ঝরেছে ২ হাজার ৮৯৬ জনের। গত ২৪ ঘণ্টায় সংক্রমিত হয়েছেন চার হাজার ৯৮৭ জন, যা রেকর্ড।
দেশে করোনার সংক্রমণ যেভাবে লাগামছাড়া হয়ে পড়ছিল, তাতে যে লকডাউনের মেয়াদ আরও বাড়বে, গত কয়েকদিন ধরেই তার আভাস মিলেছিল। এদিন সন্ধ্যা হতেই জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা কর্তৃপক্ষ জানিয়ে দিল, আরও দুই সপ্তাহের জন্য বাড়ছে লকডাউনের মেয়াদ। তার খানিকক্ষণ বাদেই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রসচিব অজয় ভাল্লার স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে চতুর্থ দফার লকডাউনে কী-কী বন্ধ থাকছে এবং কী-কী ছাড় দেওয়া হচ্ছে।
আগামী ৩১ মে পর্যন্ত অন্তর্দেশিয় বিমান পরিষেবা পুরোপুরি বন্ধ থাকবে। একমাত্র চিকিৎসার প্রয়োজনে দেশের অভ্যন্তরে এয়ার অ্যাম্বুলান্স চলবে। বন্ধ থাকছে মেট্রো রেল পরিষেবা। স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় সহ যাবতীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে। সমস্ত হোটেল, রেস্তোরাঁ, শপিং মল, সুইমিংপুল, জিম, সিনেমা হল, থিয়েটার হল, পানশালা ও উদ্যানও বন্ধ থাকছে। তবে রক্ষণাবেক্ষণের জন্য সাময়িকভাবে খোলা যাবে। মন্দির, মসজিদ, গির্জা সহ সব ধর্মীয়স্থান সাধারণ মানুষের জন্য বন্ধ থাকবে। সামাজিক, রাজনৈতিক ও ধর্মীয় কর্মসূচিও নিষিদ্ধ থাকছে। গ্রাহকদের মধ্যে ৬ ফুট দুরত্ব নিশ্চিত করতে দোকানগুলিকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
স্বরাষ্ট্রসচিবের জারি করা বিজ্ঞপ্তিতে চতুর্থ দফার লকডাউনে বিয়ের মতো সামাজিক অনুষ্ঠানকে ছাড় দেওয়া হয়েছে। তবে ওই অনুষ্ঠানে ৫০ জনের বেশি অংশ নিতে পারবেন না বলে জানানো হয়েছে। শেষকৃত্য অনুষ্ঠানে ২০ জনের বেশি উপস্থিত থাকতে পারবেন না। আন্তঃ রাজ্য বাস চালানোর ক্ষেত্রেও রাজ্যগুলির উপরে সিদ্ধান্ত নেওয়ার ভার ছাড়া হয়েছে। পাশাপাশি রাজ্যের মধ্যে বাস ও অন্যান্য গাড়ি (ট্যাক্সি, অটো রিকশা) চালানোর বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার অধিকার সংশ্লিষ্ট রাজ্য সরকারের উপরে ছাড়া হয়েছে।
তৃতীয় দফার লকডাউনে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক জানিয়েছিল যে সরকারি ও বেসরকারি অফিস ৩৩ শতাংশ কর্মী নিয়ে খোলা যাবে। চার চাকার গাড়িতে ২ জন এবং মোটর সাইকেলে এক জন যাতায়াত করতে পারবেন। চতুর্থ দফার লকডাউনে এই সব ক্ষেত্রে আরও ছাড় দেওয়া হবে বলেই মনে করা হচ্ছিল। কিন্তু কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রসচিব জানিয়েছেন, তৃতীয় দফার নিয়ম অপরিবর্তিত থাকছে। অর্থাৎ বাড়তি কর্মী নিয়ে অফিস চালানোর অনুমতি দেওয়া হচ্ছে না। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only