রবিবার, ২৮ জুন, ২০২০

জাতি-ধর্মের ভিত্তিতে বৈষম্য করে না সরকারঃ প্রধানমন্ত্রী

নয়াদিল্লি, ২৭ জুনঃ এর আগেও একাধিকবার এই একই কথা বলেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তারপরও দেশের বিভিন্ন প্রান্তে হিংসার ঘটনা ঘটেছে। স্বঘোষিত গোরক্ষকদের তাণ্ডবের বিরুদ্ধেও সরব হয়েছিলেন তিনি। কিন্তু তারপরও হামলা রোখা যায়নি। আবারও একবার ‘হিতোপদেশ’ দিলেন প্রধানমন্ত্রী। কিন্তু গেরুয়া শিবির কি সে কথা শুনবে? 

দেশের সংবিধানই সরকারের পথপ্রদর্শনের আলো। এমনটাই বললেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, তাঁর সরকার জাতি-ধর্ম-বর্ণ-ভাষা-লিঙ্গর ভিত্তিতে কোনও বৈষম্য করে না। দেশের ১৩০ কোটি মানুষের ক্ষমতায়নই তাঁদের প্রধান লক্ষ্য। কেরলের পাঠানামথিট্টায় রেভ জোসেফ মার থোমা মেট্রোপলিটনের ৯০তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে ভিডিয়ো কনফারেন্সের মাধ্যমে অংশগ্রহণ করেন প্রধানমন্ত্রী। 

সেখানে তিনি বলেন, বর্তমান সরকার দিল্লিতে কোনও আরামদায়ক সরাকারি অফিসের ঠান্ডা ঘরে বসে কোনও সিদ্ধান্ত নেয় না। একেবারে রাস্তায় নেমে সাধারণ মানুষের থেকে মতামত নিয়ে তার ভিত্তিতেই সিদ্ধান্ত নেয়। আর এজন্যই এখন দেশের প্রত্যেক মানুষের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট রয়েছে। দেশের করোনা পরিস্থিতি নিয়েও আশার কথা শুনিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে বিশ্বের অনেক দেশের থেকে ভালো জায়গায় রয়েছে ভারত। প্রধানমন্ত্রীর কথায়, ‘বিশ্বজোড়া এই মহামারির বিরুদ্ধে কঠিন লড়াই লড়ছে গোটা পৃথিবী। 

করোনা শুধু নিছক কোনও অসুস্থতা নয়, মানুষের জীবনের কাছে একটা বড় হুমকি।’ লকডাউনের কার্যকারিতার সাফল্য ব্যাখ্যা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, চলতি বছরের শুরুতে অনেকেই আশঙ্কা করেছিলেন ভারতে করোনা মারাত্মক আকার নেবে। কিন্তু লকডাউন সহ সরকারের একাধিক পদক্ষেপের জেরে ভারতের পরিস্থিতি অন্যান্য অনেক দেশের থেকে অনেক ভালো। দেশে করোনার বিরুদ্ধে যুদ্ধে সুস্থতার হারও বাড়ছে। রেভ জোসেফ মার থোমা মেট্রোপলিটনের দীর্ঘায়ু ও সুস্বাস্থ্য কামনা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দারিদ্র দূরীকরণে ও মহিলাদের ক্ষমতায়নের লক্ষ্যে উনি অত্যন্ত আন্তরিক ছিলেন।  

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only