শনিবার, ২০ জুন, ২০২০

শহীদ রাজেশ ওরাং-এর পরিবারকে চাকরি ও আর্থিক সাহায্যের ঘোষণা ২৪ ঘণ্টার মধ্যে বাস্তবায়িত করল বীরভূম জেলা প্রশাসন

কৌশিক সালুই, বীরভূম:  শেষকৃত্য সম্পন্ন হওয়ার ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই বীর সেনানী অমর শহীদ রাজেশ ওরাং এর পরিবারকে চাকরি দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু করে দিল বীরভূম জেলা প্রশাসন। শনিবার শহীদ রাজেশের বাড়িতে গাড়ি পাঠিয়ে অবিবাহিত ছোট বোন শকুন্তলাকে সিউড়ি প্রশাসন ভবনের নিয়ে এসে শিক্ষাগত যোগ্যতার কাগজপত্র নেওয়া হলো এবং চাকরির আবেদন গ্রহণ করা হলো।

লাদাখ সীমান্তে আগ্রাসী চীনের সৈনিকের হাতে শহীদ রাজেশ ওরাং এর পরিবারকে চাকরি  আর্থিক সাহায্য দেওয়ার কথা  ঘোষণা  করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।  গত শুক্রবার শহীদ রাজেশ  ওরাং  এর  শেষকৃত্য হওয়ার আগেই আর্থিক সাহায্যের  সেই চেক  তুলে দেওয়া হয়েছিল পরিবারের হাতে। শেষকৃত্য সম্পন্ন হবার একদিন পরেই শনিবার চাকরি দেওয়ার প্রক্রিয়াটি শুরু হয়ে গেল।

বীরভূম জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে এদিন বীর শহীদের মহম্মদ বাজারের বেলগড়িয়া গ্রামের বাড়িতে আধিকারিকরা যান। বাবা সুভাষ ওরাং ও মা মমতা ওরাং এর কাছে প্রয়োজনীয় নথিতে সই সাবুদ করান তারা এবং সেখান থেকে শহীদ রাজেশের অবিবাহিত ছোট বোন শকুন্তলা ওরাংকে  সঙ্গে নিয়ে সিউড়িতে জেলাশাসকের কার্যালয়ে আসেন। তার কাছ থেকে শিক্ষাগত যোগ্যতা সহ অন্যান্য নথি গ্রহণ করেন সদর মহকুমা শাসক রাজীব মন্ডল। 

পাশাপাশি চাকরির আবেদন গ্রহণ করা হয়। শকুন্তলার বর্তমান বয়স 19 বছর এবং সে স্নাতক স্তরে দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী। অর্থাৎ বর্তমানে উচ্চ মাধ্যমিক পাস সেই  যোগ্যতাই গ্রুপ সি পদে চাকরি পাবেন বলে প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে।  অন্যদিকে পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে আগামী রবিবার রাত্রে এবং সোমবার বীর সেনানী অমর শহীদ রাজেশ ওরাং এর পরবর্তী পরলৌকিক  ক্রিয়া হবে।

অমর শহীদের বোন শকুন্তলা ওরাং বলেন," প্রশাসনের পক্ষ থেকে ডেকে পাঠানো হয়েছিল শিক্ষাগত যোগ্যতা আধার কার্ড ভোটার কার্ড প্রভৃতি নথি এবং চাকরির আবেদন  নেওয়া হয়েছে"।

সদর মহকুমা শাসক রাজীব মন্ডল বলেন," শহীদ রাজেশের অবিবাহিত বোনের কাছ থেকে শিক্ষাগত যোগ্যতা এবং অন্যান্য  নথি নেওয়া হয়েছে। চাকরির আবেদন গ্রহণ করা হয়েছে। দ্রুত প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন হয়ে যাবে "।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only