শুক্রবার, ১৯ জুন, ২০২০

দেশের সরকার তাড়াতাড়ি ঘুমিয়ে পড়াতেই চিনা আক্রমণ, তোপ রাহুলের



পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক: লাদাখে চিন-ভারত সীমান্তে ২০ ভারতীয় জওয়ানের মৃত্যু নিয়ে কেন্দ্রের উপর আক্রমণ শুক্রবারও জারি রাখলেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধি৷ গতকালই তিনি সরব হয়েছিলেন, সেনাদের অস্ত্রহীন পাঠানোর সিদ্ধান্ত কার ছিল তা নিয়ে৷ এদিন রাহুল টুইট করেন, এটা একদম দিনের আলোর মতো সত্য যে সরকার তাড়াতাড়ি ঘুমিয়ে পড়েছিল৷ তাই জওয়ানদের প্রাণ দিয়ে তার মূল্য চোকাতে হল৷ শুক্রবার চিন-ভারত সংঘর্ষ নিয়ে সর্বদলীয় বৈঠকের আগে এই মন্তব্য করে পরিবেশ উত্তপ্ত করেন তিনি৷ সোমবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে গালওয়ান উপত্যকায় কর্নেল সন্তোষ বাবুর নেতৃত্বে ৫০ জন সেনা পেট্রোল পয়েন্ট ১৪-এ গেলে চিনারা আক্রমণ করে৷ গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই এলাকায় উত্তেজনা বাড়ছিল৷ তারপর এই ঘটনায় দুপক্ষের মধ্যে হাতাহাতি শুরু হয়, যার জেরে হতাহতের ঘটনা ঘটে আক্রমণে ঘটনায় দেশের ২০ সেনা শহিদ হয়েছেন যা নিয়ে দেশের আবহাওয়া বেশ উত্তপ্ত ৷ শহিদদের শেষকৃত্য চলছে৷ চিনের প্রতি আক্রোশ বাড়ছে দেশের মানুষের৷ এই ঘটনায় মোদি সরকারকে কাঠগড়ায় তুলেছেন রাহুল গান্ধি৷

কেরলের ওয়েনাড়ের সাংসদ রাহুল এদিন বলেন, তিনটি বিষয় একদম ক্রিস্টাল ক্লিয়ার৷ ১. গালওয়ান উপত্যকায় চিনা আক্রমণ পূর্বপরিকল্পিত৷ ২. ভারত সরকার তাড়াতাড়ি ঘুমিয়ে পড়েছিল এবং সমস্যাটিকে অস্বীকার করেছে৷ ৩. আর এর মূল্য চোকাতে হয়েছে আমাদের সাহসী শহিদ জওয়ানদের৷ এই টুইটের সঙ্গে রাহুল প্রতিরক্ষা রাষ্ট্রমন্ত্রী শ্রীপদ নায়েকের একটি খবর জুড়ে দেন যেখানে তিনি স্বীকার করছেন যে, ড্রাগন বাহিনীর এই হামলা ছিল পূর্ব পরিকল্পিত৷ শ্রীপদ নায়েক আগেই হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছিলেন, সাহসী জওয়ানদের আত্মবলিদান বৃথা যাবে না৷ এই হামলা চিনের পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী হয়েছে৷ ভারত এর যোগ্য জবাব দেবে৷ মোদি সরকারের মন্ত্রীর মন্তব্যকেই এভাবে হাতিয়ার করেছেন রাহুল৷

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only