মঙ্গলবার, ৩০ জুন, ২০২০

হুইলচেয়ারে মা ও বোনকে বসিয়ে ৩৫০ কিমি পাড়ি ১০ বছরের শাহরুখের

সাহস ও অদম্য ইচ্ছাশক্তিতে বলীয়ান হয়ে মাত্র দশ বছরের বালক হায়দরাবাদ থেকে বেঙ্গালুরুর পথ ধরে৷ তবে সে একা হলে অন্য কথা ছিল৷ সঙ্গে হুইলচেয়ারে বসা মা ও এক বছর বয়সি ছোট বোন৷ তিন সহোদর বেঙ্গালুরুর এক আশ্রমে থাকে৷ সেখানেই দেখা করার জন্য তারা রওনা দেয়৷ মা ও বোনকে হুইলচেয়ারে ঠেলতে ঠেলতে ৩৫০ কিলোমিটার চলার পর কুরনুলে বিষয়টি সংবাদমাধ্যমের নজরে আসে৷ বালকের নাম শাহরুখ৷ ভেলদুর্থি সাব ইন্সপেক্টর টি নরেন্দ্র কুমার রেড্ডি স্থানীয় লোকজনদের কাছে তার দুর্দশার কথা শুনে সাহায্য করতে এগিয়ে আসে৷ এরপর পরিবারটিকে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সাহায্যে বেঙ্গালুরুতে পৌঁছানোর ব্যবস্থা করে দেন৷

নরেন্দ্র কুমার জানান, শাহরুখের মা হাসিনা উত্তর প্রদেশের বাসিন্দা৷ স্বামীকে হারিয়ে পাঁচ সন্তানকে নিয়ে তিনি হায়দরাবাদ পাড়ি জমান৷ ভিক্ষা করে জীবিকা নির্বাহ করতে থাকেন৷ তার করুণ অবস্থা দেখে বেঙ্গালুরুর এক আশ্রমে তিন ছেলের থাকার বন্দোবস্ত করেন এক সাহায্যকারী৷ তিনি যেতে চেয়েছিলেন৷ কিন্তু হঠাৎ লকডাউনের ফলে হায়দরাবাদে থাকতে বাধ্য হন তিনি৷ লকডাউনে তার পক্ষে বেঁচে থাকা কষ্টকর হয়ে ওঠে৷ এরপরেই তিনি বেঙ্গালুরু যেতে সচেষ্ট হন৷ পরিবহন ব্যবস্থা খুবই সীমিত থাকায় এবং পর্যাপ্ত অর্থ হাতে না থাকায় ভিন্ন উপায় অবলম্বন করার কথা ভাবেন তারা৷ হাসপাতাল থেকে একটি হুইলচেয়ার জোগাড় করেন৷ জুনের প্রথম সপ্তাহে হুইলচেয়ারে মা ও ছোট বোনকে বসিয়ে যাত্রা শুরু করে শাহরুখ৷ ৩৫০ কিমি যাওয়ার পর নরেন্দ্র কুমারের নজরে আসেন তারা৷ আশ্রমে পৌঁছালে সেখানে পুরো পরিবারেরই থাকার ব্যবস্থা হয়েছে বলে কুমার জানান৷

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only