রবিবার, ৫ জুলাই, ২০২০

হিন্দুদের শেষকৃত্যের ভার নিয়েছেন কবরস্থানের কর্মীরা, ২৫০ লাশ সৎকার সম্পন্ন



পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক : কোভিড-১৯ এর প্রেক্ষাপটে দেশে যেমন উগ্র মুসলিম বিরোধিতা দেখা গেছে একশ্রেণির কাজ কর্মে, তেমনি মুসলিমরা প্রতিবেশী হিন্দুদের পাশে দাঁড়িয়ে মহৎ দৃষ্টান্তও রেখেছে৷ সংক্রমণের ভয়ে যখন প্রিয়জনের মরদেহও সৎকার করতে পারছেন না, তখন ভরসা হয়ে উঠেছেন কবরস্থানের খাদেমরা৷ 

দক্ষিণ মুম্বইয়ের মেরিন লাইনসের বড়া গোরস্থানের কর্মীরা গত তিন মাসে ২৫০ এর অধিক হিন্দুর শেষকৃত্যে সাহায্য করে সম্প্রীতির অনন্য দৃষ্টান্ত পেশ করেছেন৷ এর জন্য তারা কোনও পারিশ্রমিক নেননি৷ শ্মশানে নিয়ে যাওয়া, শেষকৃত্য সম্পন্ন করা পরিবারকে ডেথ সার্টিফিকেট পাইয়ে দেবার কাজও করছেন ওই মুসলিম কর্মীরা৷ প্রতিবেশী হিন্দুদের পাশে দাঁড়ানোর এই প্রয়াস ইতিমধ্যেই আলোড়ন ফেলেছে শহরে৷

মুম্বইয়ের বড়া কবরস্থানের সীমানা দেওয়াল রয়েছে চন্দনওয়াড়ি দাহকেন্দ্রের একদম গা লাগালাগি৷ শেষকৃত্যে আসার জন্য তারা যেমন গাড়ির ব্যবস্থা করেছে তেমনি হাসপাতালে যাওয়ার জন্যও রয়েছে বিশেষ ব্যবস্থা৷ অনেক সময় পরিবারের লোকেরাই তাদেরকে ডেকে পাঠায় মৃতদেহ নিয়ে আসার জন্য৷ কোভিড-১৯ মৃত বেওয়ারিশ লাশদের সৎকারের ব্যাপারে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাদের ডেকে পাঠায়৷

বড়া কবরস্থানের টাস্ক ফোর্স সদস্য ইকবাল মামদানি জানান, করোনা ভাইরাস যেমন কাউকে ছেড়ে কথা বলে নাতেমনি ভয়ও কোনও বৈষম্য সৃষ্টি করে না৷ কোভিড-১৯ মৃত লাশের সৎকারের ব্যাপারে সব ধর্মের মানুষই ভয়ের মধ্যে রয়েছে৷ হাসপাতালের মর্গেও কর্মী কম৷ ফলে অনেক লাশ ১৮ ঘণ্টা পর্যন্ত পড়ে থাকছে৷ এমনকি অ্যাম্বুলেন্স চালকরাও লাশ বহন করতে ভয় পাচ্ছেন৷ এই পরিস্থিতিতে বড়া কবরস্থানের কর্তৃপক্ষ সব ধর্মের লাশেরই সৎকারের ব্যাপারে সাহায্য করার এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছিল৷


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only