বুধবার, ২৯ জুলাই, ২০২০

রাফায়েল দেশবাসীর উদ্দেশ্যে কি বললেন রাজনাথ, তাতেই পালটা কংগ্রেসের সমালোচনা

   
পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক : বহুলালোচিত রাফায়েল যুদ্ধবিমান ফ্রান্স থেকে আম্বালা বিমানঘাঁটিতে এসে পৌঁছেছে। ওই ঘটনায় কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করা হলেও প্রধান বিরোধীদল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে একাধিক প্রশ্ন ও কটাক্ষ করা হয়েছে।  
রাফায়েল হাতে পাওয়া প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছেন, ‘রাষ্ট্রের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করার থেকে বড় পুণ্য নেই। জাতীয় নিরাপত্তা মজবুত করার থেকে বড় উপাসনা কিছুই নেই। দেশের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করার চেয়ে বড় কাজ আর কিছুই হতে পারে না।’ প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং একে দেশের সামরিক ইতিহাসে নয়া যুগের সূচনা বলে অভিহিত করেছেন। 
রাজনাথ সিং একই সঙ্গে বলেছেন, যাঁরা ভারতের সার্ভভৌমত্ব বা দেশের জমি কেড়ে নেওযার চেষ্টা করছে তাদের এবার বিমানবাহিনীর ক্ষমতা সম্পর্কে সচেতন হওয়া প্রয়োজন। আজ বুধবার দুপুরে ৫ টি রাফায়েল যুদ্ধবিমান ভারতে পৌঁছয়।
রাজনাথ সিং বলেন, ‘আম্বালায় পাখিরা নিরাপদে অবতরণ করেছে। রাফায়েল যুদ্ধবিমানের ভারতের মাটি স্পর্শ করা, দেশের সামরিক ইতিহাসে একটি নয়া যুগের সূচনা। বহুমুখী ক্ষমতাসম্পন্ন অত্যাধুনিক যুদ্ধবিমানগুলো ভারতীয়  বিমান বাহিনীর ক্ষমতায় বিপ্লব আনবে। সফলভাবে বিমানগুলোকে উড়িয়ে  আনার জন্য আমি বিমান বাহিনীকে অভিনন্দন জানাই।’
রাজনাথ সিং আরও বলেন, ‘আমি অত্যন্ত খুশি, কারণ, বিমানবাহিনীর সামরিক ক্ষমতা বৃদ্ধি পেয়েছে। করোনা আবহে বিশ্বজোড়া কঠোর  বিধিনিষেধ সত্ত্বেও ওই বিমান এবং সমরাস্ত্র যথাসময়ে হাতে তুলে দেওয়া নিশ্চিত করার জন্য আমি ফরাসি সরকার, দাসোঁ এভিয়েশন এবং অন্যান্য ফরাসী সংস্থাগুলোকেও ধন্যবাদ জানাই।’
২০১৬ সালে কেন্দ্রীয় বিজেপি সরকারের সঙ্গে আন্তঃ সরকারি চুক্তি হয়। সেই অনুযায়ী, প্রায় ৫৯ হাজার কোটি টাকার বিনিময়ে ফ্রান্সের দাসো এভিয়েশন সংস্থার থেকে ৩৬টি রাফায়েল যুদ্ধবিমান কিনেছে ভারত। আগামী ২ বছরে তা ভারতে আসবে। এবং সব বিমান একেবারে তৈরি হয়েই ভারতে পৌছবে। 
অত্যাধুনিক প্রযুক্তির ওই মিডিয়াম মাল্টি রোল কমব্যাট এয়ারক্র্যাফটে রয়েছে ইউরোপের মিসাইল প্রস্তুতকারী সংস্থা এমবিডিএ’র মিটিওর বিয়ন্ড ভিসুয়াল রেঞ্জ এয়ার-টু-এয়ার মিসাইল, স্কাল্প ক্রুজ মিসাইল অ্যান্ড হ্যামার।
এদিকে, রাফায়েল যুদ্ধবিমান প্রসঙ্গে প্রধান বিরোধীদল কংগ্রেস বলেছে, কংগ্রেস ক্ষমতায় থাকলে, ৩৬ টির পরিবর্তে ভারতে ১২৬ টি বিমান আসত। ১০৮টি বিমান ভারতেই তৈরি হতো। ২০১৬ সালেই ভারতে চলে আসত ওই বিমান। এবং প্রত্যেক বিমানের দাম পড়ত প্রায় ৫২৬ কোটি টাকা। রাফায়েল ক্রয় চুক্তি নিয়ে কংগ্রেস অনেকদিন ধরেই চুক্তিতে অনিয়ম ও বেশি দামে তা কেনা হয়েছে বলে অভিযোগ করে আসছে।   
Add caption
বুধবার কংগ্রেসের মুখপাত্র রণদীপ সিং সূর্যেওয়ালা রাফায়েলকে স্বাগত জানিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের উদ্দেশ্যে ৪ দফা প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়ে বলেন- একটি রাফায়েল ৫২৬ কোটি টাকার পরিবর্তে ১ হাজার ৬৭০ কোটি টাকায় কেন? ১২৬ টি রাফায়েলের পরিবর্তে ৩৬ টি কেন? ‘মেক ইন ইন্ডিয়া’র পরিবর্তে ‘মেক ইন ফ্রান্স’ কেন? ৫ বছর দেরী হল কেন তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন রণদীপ সিং সূর্যেওয়ালা।    
অন্যদিকে, কংগ্রেসের সিনিয়র নেতা দিগ্বিজয় সিং বলেন, ‘অবশেষে রাফায়েল যুদ্ধবিমান এল। কংগ্রেসের নেতৃত্বাধীন ইউপিএ সরকার  ২০১২ সালে ১২৬ টি রাফায়েল কেনার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল এবং ১৮ টি রাফায়েল বাদে ভারত সরকারের এইচএএল-এ (হিন্দুস্তান অ্যারোনটিকস  লিমিটেড) নির্মাণের ব্যবস্থা ছিল। এটি ভারতে ‘আত্মনির্ভর’ হওয়ার প্রমাণ ছিল। একটি রাফায়েলে ব্যয় নির্ধারণ করা হয়েছিল ৭৪৬ কোটি টাকা।  
প্রধানমন্ত্রীর নাম না করে টুইটার বার্তায় তিনি তীব্র কটাক্ষে বলেন,  'চৌকিদার'  মহোদয় সংসদে এমনকি সংসদের বাইরেও বহুবার দাবি করা সত্ত্বেও, আজ অবধি একটি রাফায়েল কত টাকায় কিনেছেন তা বলতে বিরত রয়েছেন। কেন? কারণ চৌকিদারজীর চুরির বিষয়টি উন্মোচিত হয়ে যাবে! ‘চৌকিদার’ জী এখন অন্তত তার দাম বলুন!

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only