বৃহস্পতিবার, ৩০ জুলাই, ২০২০

উঠে যাচ্ছে নৈশ কার্ফু, অগস্ট পর্যন্ত বন্ধ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, মেট্রো রেল


পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক: প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের বেনজির তাণ্ডবে যখন গোটা দেশ কাঁপছে, ঠিক তখনই ‘আনলক-৩.০’ নিয়ে বুধবার নয়া নির্দেশিকা জারি করল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। নয়া নির্দেশিকায় স্পষ্ট জানানো হয়েছে, ‘আগামী ৩১ অগস্ট পর্যন্ত দেশের স্কুল-কলেজ সহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের দরজা বন্ধ থাকছে। মেট্রো রেল পরিষেবাও চালু হচ্ছে না। 

পাশাপাশি সিনেমা হল, থিয়েটার, বিনোদন পার্ক, সুইমিং পুল, পানশালা সহ প্রচুর লোক সমাগম হয় এমন স্থান বন্ধ থাকছে। তবে জিম ও যোগাভ্যাস কেন্দ্রগুলি খুলে দেওয়া যেতে পারে। সাধারণ মানুষকে আরও কিছুটা স্বস্তি দিয়ে নৈশ কার্ফু-ও তুলে নেওয়া হচ্ছে।’ আগামী ২১ অগস্ট পর্যন্ত দেশজুড়ে লকডাউনের মেয়াদও বাড়ানো হয়েছে। 

দেশে গত মাসখানেক ধরেই করোনাভাইরাসের প্রলয় নৃত্য চলছে। সেই সঙ্গে শুরু হয়েছে মৃত্যু ঝড়। বুধবার রাত নয়টা পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১৫ লক্ষ ৫৮ হাজার ৪৪৭ জন। আর মারণ ভাইরাসের ছোবলে প্রাণ হারিয়েছেন ৩৪ হাজার ৪৮৫ জন। যদিও করোনার বেনজির তাণ্ডবকে পাত্তাই দিচ্ছে না মোদি সরকার। বরং শুধুমাত্র মৃত্যুর হার আর সুস্থতার হারকে হাতিয়ার করেই দেশে ১ অগস্ট থেকে ‘আনলক-৩.০’ চালু করার পথে হেঁটেছে স্বরাষ্টÉ মন্ত্রক। যদিও স্বরাষ্টÉ মন্ত্রকের সিদ্ধান্ত নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। 

দেশে করোনাভাইরাস মোকাবিলায় লকডাউন পর্ব শুরুর আগেই কার্যত স্কুল-কলেজ সহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে তালা ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছিল। ফলে কোটি-কোটি পরীক্ষার্থী চরম অসুবিধার মধ্যে পড়েছে। বিভিন্ন পরীক্ষাও বাতিল করা হয়েছে। তবে যেভাবে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) স্নাতক সহ বিভিন্ন পর্যায়ের অন্তিম পর্বের পরীক্ষা সেপ্টেম্বর মাসের মধ্যে শেষ করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে ‘আমানবিক’ নির্দেশ দিয়েছিল, তাতে ‘আনলক-৩.০’ তে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের দরজা খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় কিনা, তা নিয়ে জল্পনা শুরু হয়েছিল।  

কিন্তু এদিন সন্ধ্যায় সেই জল্পনায় জল ঢেলে দিয়েছে স্বরাষ্টÉমন্ত্রক। ‘আনলক-৩.০’-র যে নয়া নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে,তাতে জানানো হয়েছে, ১ অগস্ট থেকে নৈশ কার্ফু উঠে যাচ্ছে। ফলে রাত দশটার পরে আর রাস্তায় বের হওয়ার ক্ষেত্রে কোনও বাধানিষেধ থাকছে না। ৫ অগস্ট থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে খুলে যাচ্ছে জিম, যোগাভ্যাস কেন্দ্রগুলিও।

সামাজিক-রাজনৈতিক ও ধর্মীয় জমায়েতের উপরে আগের মতোই নিষেধাজ্ঞা থাকছে। কনটেনমেন্ট জোনে আগের মতোই কড়াকড়ি থাকছে। তবে কনটেনমেন্ট জোনের বাইরে কোন পরিষেবা চালু হবে আর কোনগুলি হবে না, তা নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার ভার রাজ্য সরকারগুলির উপরেই ছাড়া হয়েছে। তবে মেট্রো রেল পরিষেবা চালু করার বিষয়ে ছাড়পত্র না দেওয়ায় অগস্ট মাস জুড়ে কলকাতা, দিল্লির অফিসযাত্রীদের ভোগান্তি পোহাতে হবে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only