বৃহস্পতিবার, ৯ জুলাই, ২০২০

সিলেবাসে নেই ধর্মনিরপেক্ষতা-নাগরিকত্ব-দেশভাগ, স্তম্ভিত মমতা

কোভিড পরিস্থিতিতে ছাত্রছাত্রীদের বোঝা কমাতে সিলেবাস সংকুচিত করার কথা বলেছিল কেন্দ্রীয় বোর্ড সিবিএসই। বুধবার নতুন সিলেবাস ঘোষণার পর দেখা যায় গণতান্ত্রিক অধিকার, ভারতে খাদ্য নিরাপত্তা, যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামো, নাগরিকত্ব এবং ধর্মনিরপেক্ষতার মতো অধ্যায় ছেঁটে ফেলা হয়েছে। তা নিয়ে তীব্র প্রতিক্রিয়া জানালেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বুধবার ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসে প্রকাশিত এই খবর শেয়ার করে গোটা বিষয়ের তীব্র বিরোধিতা করেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

‘নাগরিকত্ব, যুক্তরাষ্ট্রিয় কাঠামো, ধর্মনিরপক্ষেকতা, দেশভাগের মতো বিষয়কে সিবিএসই-র সিলেবাস কমানোর নামে পাঠ্যক্রম থেকে কেন্দ্র বাদ দিতে চাইছে জেনে আমি স্তম্ভিত। আমরা এর তীব্র বিরোধিতা করছি এবং কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের কাছে আর্জি জানাচ্ছি, যাতে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলি বাদ না দেওয়া হয়। বুধবার এমনই টু্ইট করেছেন তৃণমূল কংগ্রেস সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মুখ্যমন্ত্রীর মতোই সোশ্যাল মিডিয়ায় এই নিয়ে সরব হয়েছেন তৃণমূল নেতারা।

গতকাল মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী রমেশ পোখরিয়াল নিশঙ্ক টু্ইটে জানিয়েছিলেন, ‘প্রত্যেক বিষয়ের মূল ধারণাগুলিকে কাটছাঁট না করেও ৩০ শতাংশ পর্যন্ত পাঠ্যক্রম কমানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে।’ তবে যে সব অংশ বাদ দেওয়া হয়েছে, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছিলই। বিরোধী শিবিরের অভিযোগ ছিল, রাজনৈতিক উদ্দেশ্যেই সিলেবাস কমানো হচ্ছে। 

মূলত, এরই প্রতিবাদ করেছেন রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। তাঁর মতে, আদতে এসবের মাধ্যমে কেন্দ্রের সরকার ইতিহাস ও সংস্কূতিকে বদলে দিতে চাইছেন। তিনি বলেন, বাংলার মানুষ কোনওভাবেই কেন্দ্রের এই ইতিহাস বদলের চেষ্টা মেনে নেবে না। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only