সোমবার, ২৭ জুলাই, ২০২০

বাংলাদেশকে ঈদ কি তোফা দিল ভারত?


পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক: করোনা পরিস্থিতির মধ্যেই বাংলাদেশকে ঈদের তোফা হিসেবে ১০ টি ডিজেল চালিত ব্রডগেজ রেল ইঞ্জিন উপহার দিল ভারত। সোমবার ভারতের বিদেশমন্ত্রী ড. এস জয়শঙ্কর এবং রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল নয়া দিল্লির বিদেশ মন্ত্রকের দফতর থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে রেলইঞ্জিনগুলির ফ্লাগ অফ করেন। এরফলে দুই দেশের মধ্যে রেলপথে যোগাযোগ যেমন সুগম হবে, তেমনিই দুদেশের মধ্যে কুটনীতিক এবং বাণিজ্যিক সম্পর্ক আরও মজবুত হবে বলে আশাবাদী দুদেশের সরকার। 

করোনা পরিস্থিতির জন্য সশরীরে উপস্থিত না থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধমে এই ইঞ্জিনগুলি বাংলাদেশ সরকারকে হস্তান্তর করা হয়। এদিন দুপুরে নদীয়ার গেদে থেকে এই রেলইঞ্জিনগুলি ছাড়া হয়। এগুলি পৌঁছয় বাংলাদেশের দর্শনা স্টেশনে। ভিডিও কনফারেন্সে ছিলেন দুই দেশের প্রতিনিধিরা। 

বাংলাদেশের পক্ষ থেকে এদিন ভিডিও কনফারেন্সে ছিলেন সেদেশের বিদেশমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন, এবং রেল মন্ত্রী মুহাম্মদ নুরুল ইসলাম সুজন। রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল বলেন, এরফলে শুধু দুদেশের কূটনৈতিক এবং বাণিজ্যিক সম্পর্কই নয়, অর্থনৈতিক সম্পর্ক আরও মজবুদ হবে। বাংলাদেশের রেলমন্ত্রী এবং বিশেমন্ত্রী ভারতের এই উপহারের জন্য কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন।

রেলমন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে,১০ টি রেলইঞ্জিন তৈরিতে ব্যয় হয়েছে ৬০ কোটি টাকা। যা পুরোটাই কেন্দ্রীয় সরকার বহন করছে। ৩৩০০ হর্স পাওয়ার  ক্ষমতাসম্পন্ন ডিজেলচালিত এই ইঞ্জিনগুলি প্রতিঘন্টায় ১২০ কিলোমিটার গতিতে যেতে স ক্ষম। যাত্রীবাহীর পাশাপাশি মালগাড়ি বহনেও স ক্ষম এই রেলইঞ্জিনগুলি। প্রসঙ্গত, বর্তমানে বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের সংযোগ স্থাপনকারী রেল লাইন রয়েছে ৪ টি। 

এগুলি হল গেদে,দর্শনা,পেট্রাপোল,বেনাপোল, সিঙ্গাবাদ-রোহনপুর এবং রাধিকারপুর-বিরোল। দুদেশের মধ্যে প্রতিমাসে ১০০ টি মালবাহী ট্রেন যাতায়াত করে। মালবাহী ট্রেনের পাশাপাশি কলকাতা-ঢাকা মৈত্রী এক্সপ্রেস এবং কলকাতা-খুলনা বন্ধন এক্সপ্রেস এই দুটি যাত্রী বাহী ট্রেন যাতায়াত করে। তবে করোনা অতিমারীর কারণে সেগুলি বন্ধ রয়েছে। 

দুদেশের মধ্যে সুসম্পর্ক গড়ে তোলার জন্য ভারতের সহযোগিতায় বাংলাদেশে আরও বেশকয়েকটি রেল লাইন প্রসারের কাজ এখনও চলছে। রেলমন্ত্রক সূত্রে জানা গিয়েছে, রেল লাইন, ব্রীজ, সিগন্যালিং ব্যবস্থা সহ বাংলাদেশের ১৭ টি প্রকল্পে সহায়তা করছে ভারত। যারমধ্যে খুলনা-শাহবাজার রেল লাইন, খুলনা-মোঙ্গলা সহ  ৯ টি প্রকল্পের কাজ  প্রায় শেষের দিকে। রেলমন্ত্রক সূত্রে জানা গিয়েছে, এই প্রকল্পগুলির জন্য প্রায় ১৮০০ কোটি টাকা ব্যয় ধার্য করা হয়েছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only