মঙ্গলবার, ২৮ জুলাই, ২০২০

অগ্নিমূল্য দামে নাজেহাল আম জনতা, দাম নিয়ন্ত্রণে মাঠে এবার ইবি


পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক: করোনা অবহে অগ্নিমূল্য সবজির। সবজি কিনতে গেলেই হাতে ছেঁকা খাচ্ছে শহরবাসীর। আলু, লঙ্কা থেকে মাছ-মাংস সব কিছুরই বেড়েছে দাম। আর এরই মাঝে বাজারদর সামাল দিতে নামল এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চের আধিকারিকরা।এ দিন সকালে প্রথমে হাতিবাগান বাজারে হানা দেন ইবি-র আধিকারিকরা।সেখানে তাঁরা বিক্রাতাদের থেকে খবর নেন কোন সবজি কত দরে বিক্রি হচ্ছে। 

পাশাপাশি তাঁরা ক্রেতাদের সঙ্গেও কথা বলেন। এদিন তিবাগানের পাশাপাশি শোভাবাজার বাজারেও যান ইবি-কর্তারা। সেখানে দেখা যায়, খোলা বাজারে জ্যোতি আলু বিক্রি হচ্ছে  প্রতি কেজি ৩০ টাকা, চন্দ্রমুখী আলু দাম ৩৫ টাকা কিলো। টমেটোর দাম প্রতি কিলো ৮০ টাকা । লঙ্কা কেজিপ্রতি ২০০ টাকা , গাজর ৬০ টাকা। বাঁধাকপি ৫০ টাকা। আদা ১২০ থেকে ১৫০ টাকা প্রতিকিলো। কুমড়ো কিলো প্রতি ৩০থেকে ৪০ টাকা। ফুলকপি প্রতি পিস ৪০ থেকে ৬০ টাকা। উচ্ছে ৬০ টাকা প্রতিকিলো। পটল ৪০-৫০ টাকা প্রতিকিলো। ঢেঁড়স প্রতি কিলো ৫০ টাকা, বেগুন ৫০ টাকা প্রতিকিলো। 

আসলে কাঁচা লঙ্কা থেকে শুরু করে টমেটো, ক্যাপসিকাম, বিনস-এর মতো আমদানি নির্ভর সবজির দাম বাড়ছে নিয়মিত। এবছর আমফান আর লকডাউনের জোড়া ফলায় অগ্নিমূল্য সবজির বাজার। এর উপর আলুর দাম বাড়তে থাকায় বাঙালির হেঁসেলে বেহাল দশা। এই অবস্থায় সরকারের তরফ থেকে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে মূল্যবৃদ্ধি নিয়ন্ত্রণের। সেই লক্ষ্যেই এই হানা বলে মনে করা হচ্ছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only