বুধবার, ২৯ জুলাই, ২০২০

পাঠ্যসূচি থেকে বাদ সংবিধান, নবী সা. টিপু


বেঙ্গালুরু : কেন্দ্র সরকারের স্কুল সিলেবাস থেকে ধর্মনিরপেক্ষতা বিষয়ক অধ্যায় বাদ পড়া নিয়ে বিতর্ক সাম্প্রতিক। এবার কর্নাটকের শিক্ষা সংক্রান্ত পাবলিক ইনস্ট্রাকশন দফতর সিলেবাস থেকে টিপু সুলতান,হায়দার আলি, মহীশূরের ঐতিহাসিক ঘটনা বাদ দিল। এর আগেই বিজেপি-শাসনাধীন কর্নাটকে টিপু সুলতানকে নিয়ে একশ্রেণির মানুষের গাত্রদাহ লক্ষ করা গিয়েছে।

 তবে আগে সিলেবাস থেকে বাদ দিতে সমর্থ হয়নি চক্রান্তকারীরা। এবার লকডাউনের সুযোগ নিয়ে সেটা সফল হয়ে গেল। কোভিড-১৯’এর কারণে কয়েক মাস যাবৎ স্কুল বন্ধ। তাই স্কুল সিলেবাসের ৩০ শতাংশ বোঝা কমানোর কথা বলা হয়েছে সরকারি দফতর থেকে। আর সেই টিপু সুলতানের অধ্যায়েই ঝোপ বুঝে কোপ মেরেছে কর্তৃপক্ষ। 

সপ্তম শ্রেণির সমাজ বিজ্ঞান বইয়ের একটি সেকশন যেখানে টিপু সুলতান, হায়দার আলিদের আলোচনা ছিল, তা বাদ দেওয়া হয়েছে এই প্রক্রিয়ায়। দশম শ্রেণির একটি অধ্যায় থেকেও একই ভাবে বাদ পড়েছেন তাঁরা। বিজেপির দীর্ঘদিনের দাবি কি এবার প্রকারান্তরে মেনে নিল সিলেবাস কমিটি? প্রশ্ন উঠছে বিভিন্ন মহলে। শুধু টিপু সুলতানেই ক্ষান্ত হয়নি, ভারতীয় সংবিধানের বৈশিষ্ট্য, ড্রাফটিং কমিটি সংক্রান্ত পঠন বিষয়গুলিও বাদ গিয়েছে এবারের সিলেবাস থেকে। উড়িয়ে দেওয়া হয়েছে ষষ্ঠ শ্রেণির মুহাম্মদ সা. এবং যিশু খ্রিস্ট সংক্রান্ত অধ্যায়ও। 

শিক্ষা দফতর অবশ্য সাফাই দিয়েছে, নবম শ্রেণিতে এই বিষয়গুলো রয়েছে। তাই সপ্তম শ্রেণির বোঝা হালকা করা হয়েছে। কিন্তু বেছে বেছে এই অধ্যায়গুলিতেই কোপ কেন? সিলেবাসের কি সংঘীকরণ হচ্ছে? প্রশ্ন উঠছে ওয়াকিফহাল মহলে। আর এভাবে অধ্যায় বাদ দিলে পরবর্তী শ্রেণিতে ‘ব্যাকগ্রাউন্ড’ না জেনে শিক্ষার্থীরা বিষয়গুলো সম্বন্ধে বিস্তারিত জানবে কী করে,প্রশ্ন তুলছেন বিশেষজ্ঞরা।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only