বৃহস্পতিবার, ৩০ জুলাই, ২০২০

এবারও ঈদের জামাত হচ্ছে না রেড রোডে, কি পরামর্শ দিলেন নাখোদার ইমাম


আবদুল ওদুদ

করোনা ভাইরাসের কারণে ঈদ-উল-ফিতরের ঐতিহাসিক জামাত রেড রোডে অনুষ্ঠিত হবে না। সরকারী গাইড লাইন মেনে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে রেড রোডের ঈদের জামাত কমিটি। বুধবার রেড রোডের ইমাম ক্বারী ফজলুর রহমান একথা জানিয়েছেন। তিনি জানান, ঈদ উল ফিতরের মতই ঈদ উল আযহার জামাত রেড রোডে অনুষ্ঠিত হবে না। 

মারণরোগ করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। রাজ্য সরকার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে তা  কার্যকর করতেই এই সিদ্ধান্ত বলবৎ করা হয়েছে বলে জানান মাওলানা ক্বারী ফজলুর রহমান জানিয়েছেন। পাশাপাশি সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে কুরবানী করাও পরামর্শ দিয়েছেন তিনি। কোনও জমায়েত ছাড়ায় নিজ নিজ বাড়িতে কুরবানী করে প্লাস্টিকে মুড়ে দুস্থদের বিতরণ করার কথা বলেছেন। 

অন্যদিকে, কলকাতা নাখোদা মসজিদের ইমাম মাওলানা শফিক কাসেমী জানিয়েছেন, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের দাপট আগের থেকে বহু গুনে বেড়েছে। আমাদের আরও সচেতন ও সজাগ হতে হবে। তবেই করোনা কাল থেকে মুক্তি পাব। তিনি বলেন, করোনা থেকে মুক্তি পেতে আমাদের সরকারী গাইড লাইন মানা অবশ্য উচিত। ঈদের জামাত প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সরকারি নির্দেশ মেনে জামাত অনুষ্ঠিত হবে। তবে মসজিদ কর্তৃপক্ষ ঠিক করবে কটা জামাত করা যাবে। সেই অনুযায়ী ঈদের জামাত করার পরামর্শ দেন তিনি। 

তবে এও বলেন, কোনওভাবেই সরকারী নির্দেশিকা উপেক্ষা করা যাবে না। তিনিও পরিষ্কার করে জানিয়েছেন রেড রোডে ঐতিহাসিক ঈদের জামাত এবারও অনুষ্ঠিত হচ্ছে না। শহর ও মফস্বলগুলিতে যে ঈদের জামাত ছোট ছোট করার পরামর্শ দেন তিনি। তবে মসজিদের ভিতরেই অনুষ্ঠিত হবে। রাস্তায় কোনও ঈদের জামাত করা যাবে না। তিনি আরও বলেন, যাদের উপর কুরবানী ওয়াজিব তারা অবশ্যই কুরবানী করবেন। তবে, তা করতে হবে বাড়িতেই। কুরবানীর বদলে অন্যকিছু করা যাবে না। কুরবানীর অর্থ বিতরণ করা জায়েজ নয়। কুরবানীর অর্থ কুরবানীর কাজেই ব্যবহার করতে হবে। 

মাওলানা শফিক কাসেমী বলেন, কুরবানী করার পর পরিস্কার পরিচ্ছন্ন সাথে সাথে করতে হবে। আবর্জনাগুলি কালো পলিথিনে পুরসভার গাড়িতে ফেলতে হবে। ছোট ছোট ছেলেদের এই কাজে ব্যবহার করা যাবে না। কুরবানীর পর মাংস বিতরণ কালো প্লাস্টিকে মুড়ে বিলি করার পরামর্শ দেন। তিনি কঠোরভাবে বাচ্চাদের এই কাজে সামিল না করার পরামর্শ দেন। 

তিনি বলেন, আমরা সকলে ভারতীয়, দেশের নির্দেশনা সকলকে মেনে চলা অবশ্যই কর্তব্য। কুরবানীর পশু ক্রয় প্রসঙ্গে তিনি বলেন, দূর থেকে কুরবানী না কিনে বাড়ির পাশে কিংবা মহল্লায় যে কুরবানীর পশু পাওয়া যাচ্ছে তা ক্রয় করে কুরবানী করুন। বর্ষাকালে পশুর যাতে অসুবিধা না হয় তারজন্য পানি, ধূপ এবং খাওয়ার ব্যবস্থা যথাযত করার পরামর্শ দেন। তিনি বলেন, করোনা কাল থেকে বাঁচতে আমাদের আরও সচেতন হতে হবে। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only