বৃহস্পতিবার, ৩০ জুলাই, ২০২০

আজ ইয়াওমে আরাফাত


পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক: আজ বৃহস্পতিবার পবিত্র ইয়াওমে আরাফাত বা আরাফাত দিবস। বুধবার মক্কার উপকণ্ঠ তাঁবুর নগরী মীনা উপত্যকায় জমায়েত হন হজযাত্রীরা। এখান থেকেই মূলত হজ মুবারকের আনুষ্ঠানিকভাবে সূচনা হয়। মীনা হয়ে বিস্তীর্ণ আরাফাত ময়দান ও সংলগ্ন পাহাড়ে পৌঁছতে হয়। হাজিদের ‘লাব্বাইক আল্লাহুমা লাব্বাইক’ ধ্বণিতে মুখরিত হয় পবিত্র আরাফাত ময়দান। বৃহস্পতিবার ভোর থেকেই আরাফাতে জমায়েত হন হজযাত্রীরা। 

যদিও হজের পরম্পরা অনুযায়ী বলা হয়, আরাফাত পৌঁছনোর পরেই হজযাত্রীরা হাজি হিসেবে গণ্য হন। যদিও আরাফাতপর্বের পরেও আরও কিছু করণীয় থাকে, কিন্তু সেগুলো আবশ্যিক নয়। শারীরিক সক্ষমতা থাকলে পরবর্তীয় পর্যায়ের করণীয়ও করেন অনেকে। আর যাদের সক্ষমতা নেই, তাঁরা আরাফাতের পরের পর্বগুলোকে ঐচ্ছিকভাবে নিতে পারেন। যদিও যাঁরা হজ মুবারকে যান, তাঁদের অধিকাংশই সমগ্র প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণ করতে চেষ্টা করেন। একান্তভাবে সম্ভবপর না হলে কেউ এই পর্বে গিয়ে বিরতি নেন না।

ইসলামের ইতিহাস মোতাবেক, আরাফাত ময়দানেই নবীকুলের সর্দার আখেরী নবী হযরত মুহাম্মদ সা. হজের বিদায়ী ভাষণ দিয়েছিলেন। এই ময়দান সংলগ্ন নামিরা মসজিদ থেকে জোহরের ওয়াক্তে নব্যহাজি সহ মুসলিম উম্মাহর উদ্দেশ্যে খুতবা হবে আজ। তারপর এক আযানে দুই ইকামাতে জোহর ও আসরের নামায আদায় করতে হবে। সূর্যাস্তের সময় থেকে আরাফাত হয়ে মুজদালিফা রওনা দেবেন সবাই। সেখানে মাগরিব ও এশার নামায হবে। মুজদালিফায় খোলা আকাশের নীচে সারারাত অবস্থান ও ইবাদাত করে পুনরায় মীনা অভিমুখে রওনা দেবেন হাজিরা। কাল ৩১ জুলাই সউদি আরব সহ বহু দেশে পালিত হবে পবিত্র ঈদ-উল-আযহা। হাজিরা সেখানে থেকেই কুরবানি দেবেন। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only