বৃহস্পতিবার, ২ জুলাই, ২০২০

টোটো বিস্ফোরণকাণ্ডের তদন্তে মালদায় কেন্দ্রীয় ফরেনসিক দল



পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক: টোটো বিস্ফোরণ নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে কৌতূহল ক্রমশ বাড়ছে। পুলিশের একটি সূত্র বলছে, টোটোর বেটারি গরম হয়ে বিস্ফোরণ ঘটতে পারে। আবার গোয়েন্দা পুলিশের একটি সূত্র বলছে, বিস্ফোরণের তীব্রতা এতটাই ছিল যে, শক্তিশালী বিস্ফোরক থাকলেও থাকতে পারে। ঘটনার তদন্তে মালদায় আসছে সেন্ট্রাল ফরেনসিকের একটি দল।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, শনিবার ওই দলটি শহরের ঘোড়াপীরে এসে তদন্ত শুরু করবে। ঘটনাস্থল ব্যারিকেড করে ঘিরে রাখা হয়েছে। সাধরণ মানুষকে সেখানে যেতে দেওয়া হচ্ছে না। পুলিশ প্রহরায় রয়েছে। এদিকে, টোটো বিস্ফোরণের ঘটনায় কৌতূহলের পারদ বুধবার থেকে বাড়তেই আছে জেলাবাসীর মধ্যে। টোটোতে বিস্ফোরক মজুত না থাকলে এত বড় বিস্ফোরণ ঘটতো না, এমনকি এরকমভাবে ছিন্নভিন্ন হতো না চালকের দেহ, এরকমই দাবি স্থানীয় বাসিন্দা থেকে রাজনৈতিক মহলের।

মৃত টোটো চালকের নাম ইলিয়াস সেখ(৩৫)। তাঁর বাড়ি কালিয়াচক থানার সুজাপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের ব্রহ্মোত্তর গ্রামে। প্রতি সপ্তাহে একদিন করে মালদা শহরের বাগবাড়ি এলাকার একটি কারখানা থেকে প্লাইউড-‌সহ আসবারপত্রের বেশ কিছু সামগ্রী নিয়ে মধুঘাট এলাকার এক ব্যবসায়ীর কাছে সরবরাহ করতেন ওই টোটো চালক বলে পুলিশ জানতে পেরেছে।

উল্লেখ্য, বুধবার দুপুরে ঘোড়াপীর এলাকায় বিস্ফোরণের ঘটনাটি ঘটে। তার তীব্রতা একটাই ছিল যে, ইলিয়াস এর দেহ কয়েকটি খন্ডে বিভক্ত হয়ে ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে। তাঁর মুন্ডুটি একটি বাড়ির চালে গিয়ে আকটে যায়। খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে ছুটে যায় ইংলিশবাজার থানার পুলিশ, জেলা গোয়ন্দা পুলিশ। পুলিশ সুপার অলোক রাজোরিয়া জানান,‘‌ঘটনার তদন্ত জোরদার করতে সেন্ট্রাল ফরেনসিক দলকে ডাকা হয়েছে। ইতিমধ্যে মৃত চালকের নাম, পরিচয় আমরা জানতে পেরেছি।’‌

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only